• মঙ্গলবার, অক্টোবর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:১৫ সন্ধ্যা

প্যারিসে মা ও বোনকে ছুরিকাঘাতে হত্যা

  • প্রকাশিত ০৬:০৫ সন্ধ্যা আগস্ট ২৪, ২০১৮
Paris Suburb Street
ঘটনা পরবর্তী চিত্র। ছবি: রয়টার্স

উগ্রপন্ত্রী সংগঠন আইএস এই ঘটনার দায় স্বীকার করলেও, কোনও প্রমাণ দেখাতে পারেনি।

ফ্রান্সের প্যারিসের শহরতলীতে নিজ মা ও বোনকে ছুরিকাঘাতে হত্যা এবং তৃতীয় একজনকে আহত করেছেন এক ব্যক্তি। পরে পুলিশের গুলিতে আততায়ী নিজেও নিহত হন। বৃহস্পতিবার (২৩ আগস্ট) প্যারিসের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের শহরতলী ট্রাপেস এলাকায় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

সংবাদমাধ্যম বিবিসি’র প্রতিবেদনের বরাতে জানা গেছে, উগ্রপন্ত্রী সংগঠন আইএস এই ঘটনার দায় স্বীকার করলেও, কোনও প্রমাণ দেখাতে পারেনি। অন্যদিকে ফরাসি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরার্ড কলাম্ব জানিয়েছেন, তৎক্ষণিকভাবে বলা সম্ভব হচ্ছে না ঘটনাটি সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কিনা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, সে সময় পুলিশকেও হত্যার হুমকি দেন ওই আততায়ী এবং পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার আগমূহুর্তে ‘আল্লাহু আকবর’ বলে চিৎকার করে উঠেন। বিবিসির তথ্য অনুযায়ী, ছুরিকাঘাতের ঘটনার পরপরই এক বাড়িতে ঢুকে পড়েন আক্রমণকারী। পরে ছুরি হাতে বেরিয়ে আসার পর পুলিশের গুলিতে নিহত হন।

এ বিষয়ে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কলাম্বের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মানসিকভাবে ভারসাম্যহীন ছিলেন ওই ব্যক্তি। এরকম ব্যক্তির পক্ষে কোনও উগ্রপন্থী সংগঠনের নির্দেশনা অনুসরণ করা সম্ভব না।

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে প্যারিসে আক্রমণের পর থেকেই শহরটিতে জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছিল যা এখনও চলছে।

এদিকে বার্তা সংস্থা এএফপি’র বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, ভার্সাইয়ের নিকটে অবস্থিত ট্রাপেস এলাকাটি দারিদ্র্য ও সংঘবদ্ধ সহিংস ঘটনার জন্য পরিচিত। এলাকাটিতে উল্লেখযোগ্য পরিমাণ মুসলিম ধর্মাবলম্বীর বাস। উগ্রপন্তী সংগঠন আইএসএ যোগ দিতে অন্তত ৫০ জন ওই এলাকা ছেড়েছে বলে ধারণা করা হয়।