• বৃহস্পতিবার, জুন ২৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৬ সকাল

ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের শ্রদ্ধা জানাতে লাখো মানুষের ঢল

  • প্রকাশিত ০৭:০৯ রাত মার্চ ২১, ২০১৯
নিহতদের স্মরণে লাখো মানুষের ঢল
ক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলায় নিহতদের স্মরণে লাখো মানূষের ঢল। ছবি: সংগৃহীত।

'নিউজিল্যান্ডের প্রতিটি মানুষ আজ মুসলিম কমিউনিটির সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়িয়েছে'

ক্রাইস্টচার্চের নৃশংস সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণ এবং শ্রদ্ধা জানাতে সমগ্র নিউজিল্যান্ডের বিভিন্ন স্থানে লাখো মানুষের ঢল নেমেছে।

বুধবার ক্রাইস্টচার্চ শহরের সিটি কাউন্সিলর ডিয়ন সুইগসের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজের একটি পোস্ট থেকে এ তথ্য জানা গেছে। ফেসবুক পোস্টটিতে ডিয়ন সুইগস ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের স্মরণে নিউজিল্যান্ডের বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠানের বেশ কয়েকটি ছবি শেয়ার করেছেন।

ঐতিহ্যবাহী মাউরি নৃত্যে নিহতদের স্মরণ। ছবি: সংগৃহীত 

ছবিগুলোতে দেখা যায়, দেশটির বিভিন্ন প্রান্তের লাখো মানুষ নিহতদের স্মরণে একত্রিত হয়েছেন। পরম ভালোবাসায় মসজিদে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণ করেছেন পুরো নিউজিল্যান্ডের মানুষ। দেশটির আপামর জনগণ নিজেদের মতো করে স্মরণ করছেন নিহতদের। কেউ কেউ নিউজিল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী মাউরি রীতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করছেন তাদের নিহত মুসলিম ভাইদের প্রতি। কেউবা আবার গিটার কাঁধে গান গেয়ে শোক পালন করছেন।

অন্যদিকে, ক্রাইস্টচার্চে নিহতদের গভীর ভালোবাসায় স্মরণ করছে নিউজিল্যান্ডের পার্শ্ববর্তী দেশ অস্ট্রেলিয়ার জনগণও।  দেশটির শহর মেলবোর্নে নিহত ৫০ জনের স্মরণে ৫০টি জায়নামাজ বিছিয়ে প্রতিটিতে মোমবাতি জ্বালিয়ে স্মরণ করছেন নিহতদের এবং ঘৃণ্য এই সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদ জানাচ্ছেন সেখানে জড়ো হওয়া অসংখ্য মানুষ।

নিহত ৫০ জনের স্মরণে মেলবোর্নে ৫০টি জায়নামাজে প্রদীপ প্রজ্বলন। ছবি: সংগৃহীত 

ফেসবুক পোস্টে ছবির পাশাপাশি ক্রাইস্টচার্চের কাউন্সিলর লিখেছেন, “এভাবেই আমাদের শহরে একটি সন্ত্রাসী হামলা, পুরো নিউজিল্যান্ডের মানুষকে একত্রিত করেছে। সমগ্র নিউজিল্যান্ডের মানুষ আজ তাদের মুসলিম ভাই ও বোনদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছে।”


“সারা পৃথিবীর এটা জানা উচিৎ যে, এই ঘৃণ্য সন্ত্রাসী হামলা আমাদের পুরো জাতিকে আজ এক কাতারে দাঁড় করিয়েছে। নিউজিল্যান্ডের প্রতিটি মানুষ আজ মুসলিম কমিউনিটির সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে দাঁড়িয়েছে যা আমাদের জাতি হিসেবে আরো শক্তিশালী করেছে। এই ছবিগুলো শেয়ার করে সারাবিশ্বকে জানিয়ে দিন যে ঘৃণা কখনও ভালোবাসাকে হারাতে পারেনা, বরং ভালোবাসাকে আরো শক্তিশালী করে তোলে। ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে আমরা কিউই। আমাদের মানুষ এবং আমাদের মুল্যবোধ কোনওদিন ধ্বংস করা যাবেনা। আমরা শান্তিতে বিশ্বাসী এবং জাতি হিসেবে একতাবদ্ধ”, ফেসবুক পোস্টে যোগ করেন ডিয়ন সুইগস।    

দেশটির নানা প্রান্তে সন্ত্রাসী হামলায় নিহতদের স্মরণ অনুষ্ঠানে দেশটির লাখো মানুষের বক্তব্য একটাই- ‘#Stay Strong’ ।