• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:০১ দুপুর

বিয়ার পান করে টানা ৪৬ দিন থাকার শপথ!

  • প্রকাশিত ০৮:৪৪ রাত এপ্রিল ১০, ২০১৯
বিয়ার
প্রতীকী ছবি

প্রথম কয়েকদিন কষ্ট হলেও যত দিন যাচ্ছে ততই নাকি তিনি ফুরফুরে বোধ করছেন

ইতিহাস বলে, সপ্তদশ শতাব্দীতে জার্মানির একদল সন্ন্যাসী ধর্মীয় অনুষ্ঠান 'লেন্ট' চলাকালীন শুধুমাত্র বিয়ার পান করে থাকতেন। টানা চল্লিশ দিন ধরে অন্য কোনও ধরনের খাবার না খেয়েই পার করে দিতেন তারা। বিশেষ ধরনের ওই বিয়ারের নাম ছিল 'ডপলব্ল্যাক'। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের ওহিয়োর এক যুবক ওই সন্ন্যাসীদের মতো বিয়ার খেয়ে টানা ৪৬ দিন পার করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

জানা গেছে, আগামী ২১ এপ্রিল ইস্টার সানডে পর্যন্ত সব ধরনের শক্ত খাবার বাদ দিয়ে থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

প্রচলিত রীতি অনুযায়ী, লেন্ট চলাকালীন সময়ে বিয়ার পান থেকে বিরত থাকেন খ্রিস্টানরা। কিন্তু সম্পূর্ণ উল্টো পথে হাঁটছেন ডেল হল নামে ওই ব্যক্তি। গত ৬ মার্চ থেকে তিনি ৪৬ দিনের বিয়ার ডায়েটের ঘোষণা দেন।

হল জানান, প্রথম কয়েকদিন খুব কষ্ট হলেও যত দিন যাচ্ছে ততই নাকি তিনি ফুরফুরে বোধ করছেন। আর এই কয়েকদিনে তার ওজন ৩৪ পাউন্ড কমে গেছে।

তিনি বলেন, “শুরুর দিকে দ্বিতীয় এবং তৃতীয় দিন আসলেই খুব কষ্ট হচ্ছিল। কিন্তু গত কয়েকদিন আমার একটুও ক্ষুধা পায়নি। আমার মনে হয় এটা খুব ভাল লক্ষণ এবং আমি এটা ধরে রাখতে পারব।”

যদিও যাদের ইতিহাস হলকে এ কাজে উদ্বুদ্ধ করেছে সেই সন্ন্যাসীরা যে বিশেষ ধরনের বিয়ার খেতেন, উচ্চমাত্রার কার্বোহাইড্রেট থাকায় সেটিকে বলা হত 'তরল রুটি'। তবে ডেল হলের এত বাছবিচার নেই। সামনে পাচ্ছেন এমন কোনও বিয়ারেই আপত্তি নেই তার।

শুরুর দিনে দুপুর বেলায় প্রচণ্ড ক্ষুধার সময় প্রথম বিয়ারটি খেয়েছিলেন তিনি। তারপর কাজ সেরে আরও কয়েকটা। বিয়ারের পাশাপাশি অবশ্য ব্ল্যাক কফি, মিষ্টি ছাড়া চা এবং স্বচ্ছ পানিও পান করছেন হল। যাতে বিয়ারে তিনি আসক্ত না হয়ে পড়েন।

তবে এই 'ব্রত' শেষ হওয়ার পর শক্ত খাবারের বিষয়েও সতর্ক তিনি। হল বলেন, “দীর্ঘদিন এমন খাদ্যাভ্যাসে পরিপাকযন্ত্র কিছুটা আড়ষ্ট হয়ে পড়ে। তাই পরবর্তীতে ধীরে ধীরে খাবার খাওয়া শুরু করা উচিত।”

মজার ব্যাপার হলো, বিয়ার ডায়েট শুরুর পর গন্ধ নেওয়ার ক্ষমতা বৃদ্ধি পেয়েছে বলে দাবি করছেন হল।