• সোমবার, আগস্ট ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৪:৪৪ বিকেল

জরুরি আইনে শ্রীলংকায় মুখ ঢাকার ওপর নিষেধাজ্ঞা

  • প্রকাশিত ০১:৩৭ দুপুর এপ্রিল ২৯, ২০১৯
বোরকা
প্রতীকী ছবি

মুখ ঢেকে না রাখার বিষয়ে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

শ্রীলংকায় জরুরি অবস্থার সময় মুখ ঢেকে রাখতে পারবেন না দেশটির নারীরা। মুখ লুকিয়ে পরিচয় গোপন রাখা যায় এমন সবকিছুর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনার জারিকৃত এক আদেশে।

বার্তা সংস্থা ইউএনবির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, শ্রীলঙ্কায় ভয়াবহ সিরিজ বোমা হামলায় আড়াই শতাধিক নিহত ও পাঁচ শতাধিক আহত হওয়ার ঘটনার আট দিন পর সোমবার থেকে এ আইনের কার্যকারিতা শুরু হয়েছে।

এ ঘটনার পর কয়েক ডজন সন্দেহভাজনকে আটক করা হলেও স্থানীয় কর্মকর্তা ও কলম্বোর যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস দেশটিতে আরও জঙ্গি হামলার আশঙ্কা প্রকাশ করে বলছে, অনেক জঙ্গিরা বিস্ফোরক জাতীয় দ্রব্য নিয়ে ঘুরছে।

মুখ ঢেকে না রাখার বিষয়ে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভার এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। তবে প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমাসিংহের পরামর্শে মুসলিম সম্প্রদায়ের আলেমদের মতামত না নেয়া পর্যন্ত তা স্থগিত রাখা হয়েছিল।

লংকান পুলিশ বলছে, সিরিজ বোমা হামলার পর পুলিশের সাথে জঙ্গিদের একটি বন্দুকযুদ্ধে এক নারী ও ৪ বছরের এক শিশু আহত হয়েছে। পরে তদন্তে জানা যায়, আহতরা বোমা হামলার সন্দেহভাজান মূল হোতার স্ত্রী ও কন্যা।

দেশটির সামরিক বাহিনীর পক্ষ থেকে বলা হয়, দেশের পূর্বাঞ্চলের আপারা জেলায় গত শুক্রবার বন্দুকযুদ্ধে ছয়জন শিশুসহ ১৫ জনের মৃত্যু হয়েছে।

ইসলামিক স্টেট গ্রুপের দাবি, ওই বন্দুকযুদ্ধে তিন জঙ্গি নিহত হয়েছে।

পুলিশ মুখপাত্র রুয়ান গুনাসেকারা বলেন, আহত দু’জন হলেন মোহাম্মাদ জাহরানের স্ত্রী ও কন্যা।

পুলিশের পক্ষ থেক রবিবার জানানো হয়, ইস্টার সানডে পালনের সময়ের ওই বোমা হামলার ঘটনায় গত ২৪ ঘণ্টার অভিযানে সন্দেহভাজন হিসেবে ৪৮জনকে আটক করা হয়েছে।