• সোমবার, জুন ২৪, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:৪৭ সন্ধ্যা

কলেজের ভর্তি ফরমে ধর্ম হিসেবে 'মানবতা'

  • প্রকাশিত ০৬:৪২ সন্ধ্যা জুন ১, ২০১৯
ভর্তি ফরম
পশ্চিমবঙ্গের দু'টি কলেজের ভর্তি ফরমে ধর্ম হিসেবে মানবতা লেখার অভূতপূর্ব সুযোগ রাখা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

বেথুন কলেজ এবং মেদিনীপুর কলেজের  জন্য ভর্তি ফরম পূরণ করার সময় শিক্ষার্থীরা দেখেন যে ধর্মের কলামে সবার উপরে রয়েছে মানবধর্ম

ভারতে গত সোমবার রাত থেকে অনলাইনে বিভিন্ন কলেজের ভর্তি ফরম পূরণের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সেখানে পশ্চিমবঙ্গের দু'টি কলেজের ভর্তি ফরমে ধর্ম হিসেবে মানবতা লেখার অভূতপূর্ব সুযোগ রাখা হয়েছে।

ভারতের বিভিন্ন গণমাধ্যমের খবরে জানা যায়, বেথুন কলেজ এবং মেদিনীপুর কলেজের ভর্তি ফরমে এই সুযোগ রাখা হয়েছে। এই দু'টি কলেজের জন্য ভর্তি ফরম পূরণ করার সময় শিক্ষার্থীরা দেখেন যে ধর্মের কলামে সবার উপরে রয়েছে মানবধর্ম। 

এ প্রসঙ্গে কলকাতার বেথুন কলেজের অধ্যক্ষ মমতা রায় বলেন, "অনেক আবেদনকারী হয়তো প্রচলিত কোনও ধর্মেই বিশ্বাস করেন না। তিনি হয়তো শুধু মানবধর্মে বিশ্বাসী। এতদিন এই আবেদনকারীরা ওই কলামে হিন্দু, মুসলিম, খ্রিস্টান-সহ নানা ধর্মের মধ্যে ‘অন্যান্য’ বলে যেখানে উল্লেখ থাকত তা বেছে নিতেন। অনেকে আবার লিখে দিতেন ‘নন বিলিভার’। এবার থেকে তারা নিজের মত আরও স্পষ্ট করে প্রকাশ করতে পারবেন"।

"মানবতা ছাড়া যে কোনো ধর্মই হয় না, আমাদের সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে সেই বার্তাও নবীন প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেওয়া যাচ্ছে", যোগ করেন তিনি।

অধ্যক্ষ মমতা রায় আরও বলেন, "সুষ্ঠুভাবে ভর্তির মেধাতালিকা বার করাটাই আমাদের মূল উদ্দেশ্য। তবে তার মধ্যেই ছোট ছোট বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। তাই এবার অনলাইনে ভর্তির আবেদনপত্র প্রকাশের আগে কলেজে অ্যাডমিশন কমিটির বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে, এবারের আবেদনপত্রে ধর্মের তালিকায় স্থান পাবে মানবধর্ম"।

মেদিনীপুর কলেজের অধ্যক্ষ গোপালচন্দ্র বেরা তাদের এই অভূতপূর্ব উদ্যোগ সম্পর্কে বলেন, "মানুষের প্রথম পরিচয় সে মানুষ। মানবতাই তার সর্বশ্রেষ্ঠ পরিচয়। তাই কলামটি এমন রাখা হয়েছে"।

এদিকে বেথুন ও মেদিনীপুর কলেজ কর্তৃপক্ষের এমন উদ্যোগ সারা ভারতে আলোচনার সৃষ্টি করেছে। তাদের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন ভর্তিচ্ছু শিখার্থী এবং তাদের অভিভাবকেরা। এত করে শুরু থেকেই শিক্ষার্থীরা স্বাধীনভাবে মত প্রকাশের সুযোগ পাবে বলে মনে করছেন তারা।