• রবিবার, জুলাই ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৫ দুপুর

ভারতে গীতা পড়ার ‘অপরাধে’ মুসলিম ব্যক্তিকে মারধর

  • প্রকাশিত ০৩:২৬ বিকেল জুলাই ৬, ২০১৯
ভগবত গীতা
ভগবত গীতা। ছবি: সংগৃহীত

ভগবত গীতা পাঠ করার সময় মহম্মদ সমীর ও জাকির নামে দুই প্রতিবেশী যুবক তার বাড়িতে ঢুকে মারধর করে

ভারতের উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ে মুসলিম হয়ে রামচরিতমানস ও গীতা পড়ার কারণে এক ব্যক্তিকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (৪ জুলাই) সকালে নিজের বাড়িতে ভগবত গীতা পাঠ করছিলেন ৪২ বছরের দিলশের খান। সে সময়ই মহম্মদ সমীর ও জাকির নামে দুই প্রতিবেশী যুবক তার বাড়িতে ঢোকে। ঢুকেই শুরু করে দেয় মারধর। 

আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, মারধরের সময় দিলশেরের বাড়ির লোক জন ওই যুবকদের বাধা দিলে কিছুক্ষণ পর ওই দুই যুবক চলে যায়। এর পরই সমীর ও জাকিরের বিরুদ্ধে আলিগড়ের দিল্লি গেট থানায় অভিযোগ দায়ের করেন দিলশের। তার ভিত্তিতে দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ। শুক্রবার তাদের আদালতে পেশ করা হয়। জামিনের আবেদন খারিজ করে বিচারক দুজনকেই জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। দিল্লি গেট থানার এসএইচও (স্টেশন হাউস অফিসার) ইন্দ্রেশ পাল সিংহ জানিয়েছেন, তাদের বিরুদ্ধে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত, মারধর, নিগ্রহের উদ্দেশ্য নিয়ে অবৈধভাবে বাড়িতে প্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় দণ্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

দিলশের এবং তার পরিবার সূত্রে পুলিশ জানতে পেরেছে, দীর্ঘ দিন ধরেই রোজ সকালে ধর্মগ্রন্থ পড়েন দিলশের। তার মধ্যে রয়েছে ভাগবত গীতা বা রামচরিতমানসের মতো বইও। এ নিয়ে আগেও আপত্তি জানিয়েছিল ওই দুই যুবক। এ সব পড়লে ভাল ফল হবে না বলে হুমকিও দিয়েছিল।  এরপরই, বৃহস্পতিবার বাড়ি ঢুকে মারধর চালায় তারা। মারধরের পর গীতা আর রামচরিতমানস বই দুটিও অভিযুক্তরা তার বাড়ি থেকে নিয়ে চলে যায় বলে অভিযোগ দিলশেরের।