• শনিবার, অক্টোবর ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩৮ রাত

ভিডিও গেম খেলতে ছেলেকে স্কুল ছাড়িয়ে আনলেন বাবা!

  • প্রকাশিত ০৯:৪৬ রাত জুলাই ২২, ২০১৯
ভিডিও গেম
ভিডিও গেম খেলার জন্য ছেলেকে স্কুল থেকে ছাড়িয়ে এনেছেন এই কানাডীয় নাগরিক সংগৃহীত

বর্তমানে ১৬ বছর বয়সী এই গেমার খেলছে ‘ফর্টনাইট’ গেমটি

বিশ্বজুড়ে বাবা-মায়েরা সন্তানদের ভিডিও গেম আসক্তি নিয়ে চিন্তিত। কারণ শিশু-কিশোররা আজকাল পড়াশোনার চেয়ে গেমেই বেশি সময় ব্যয় করছে। কিন্তু ঠিক উল্টো ঘটনা ঘটিয়েছেন এক কানাডীয় নাগরিক। ছেলে যাতে ভিডিও গেমে আরও বেশি সময় দিতে পারে সেজন্য ছেলেকে স্কুল থেকে ছাড়িয়ে এনেছেন তিনি।

৪৯ বছর বয়সী ওই কানাডীয় ব্যক্তির নাম ডেভ হের্জগ। থাকেন কানাডার সাবডুরি এলাকায়। তিনি নিজেও দীর্ঘদিন ধরে গেম খেলেন। ডেভ জানান, মাত্র তিন বছর বয়সে ছেলে জর্দানের হাতে গেম কন্ট্রোলার তুলে দিয়েছিলেন তিনি। সাত বছর বয়সে জর্দান নিজেকে একজন পরীক্ষিত গেমার হিসেবে পরিচয় করাতে সক্ষম হয়। আর ১০ বছর বয়সে ‘হালো’ গেমের টুর্নামেন্টে বিজয়ী হয়ে শহরের গেমারদের তাক লাগিয়ে দেয় জর্দান। সেই থেকে ডেভ বুঝতে পারেন তার ছেলের ভবিষ্যৎ গেমেই সমুজ্জ্বল।

বর্তমানে ১৬ বছর বয়সী এই গেমার খেলছে ‘ফর্টনাইট’ গেমটি। ইতোমধ্যে গেমটির ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে অংশ নিতে সারা বিশ্বের ২০০ খেলোয়াড়ের মধ্যে সেও মনোনীত হয়েছে। এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ী হতে পারলে ৩০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার পুরষ্কার অপেক্ষা করছে তার জন্য।

জর্দানের বাবা জানান, গেমের জন্য মারাত্মক পরিশ্রম করতে হয় তার ছেলেকে। দিনে ৮ থেকে ১০ ঘণ্টা সে ‘ফর্টনাইট’ গেমটি খেলে। খাওয়া-দাওয়াও কম্পিউটার স্ক্রিনের সামনে। স্কুলের ক্লাসও সে অনলাইনের মাধ্যমেই সারে।

তাই জর্দানের মায়ের আপত্তি সত্ত্বেও গত বছর ছেলেকে স্কুল ছাড়িয়ে এনেছেন ডেভ। আর এজন্য তিনি মোটেই অনুতপ্ত নন। আরও মজার বিষয় হলো, ‘ফর্টনাইট’ গেমের ওয়ার্ল্ড চ্যাম্পিয়নশিপে সুযোগ পাওয়ার পর ছেলের স্কুলকে তিনি ইমেইল পাঠিয়ে বলেছেন, দেখ কত টাকা পেতে যাচ্ছে আমার ছেলে।