• রবিবার, আগস্ট ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:৩৭ রাত

লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবি, ১৫০ অভিবাসীর মৃত্যুর আশঙ্কা

  • প্রকাশিত ০১:১১ দুপুর জুলাই ২৬, ২০১৯
অবৈধ অভিবাসী
প্রতীকী ছবি। ছবি: এএফপি (ফাইল ছবি)।

১৪৭ জনকে জীবিত উদ্ধার করা হলেও এখনও নারী ও শিশুসহ প্রায় ১৫০ জন অভিবাসী নিখোঁজ রয়েছেন

ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপ যাওয়ার পথে বৃহস্পতিবার লিবিয়া উপকূলে অভিবাসীবোঝাই একটি নৌকা ডুবে গেছে। এতে নারী ও শিশুসহ ১৫০ জন অভিবাসী নিহত হয়েছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

লিবিয়ার কোস্ট গার্ড ও জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক সংস্থা (ইউএনএইচসিআর) এ তথ্য জানিয়েছে।

লিবিয়ার কোস্ট গার্ডের মুখপাত্র আইয়ুব গাসিম বলেন, "লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলি থেকে প্রায় ১২০ কিলোমিটার পূর্বের আল খোমস বন্দর থেকে অভিবাসীদের নিয়ে যাত্রা শুরু করে নৌকাটি। লিবিয়া উপকূলে প্রায় তিনশ অভিবাসী নিয়ে নৌকাটি ডুবে যায়। এরপর কোস্ট গার্ডের সদস্যরা অন্তত ১৩৭ জনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করে লিবিয়ায় ফেরত পাঠায়। একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিরা নিখোঁজ রয়েছেন।"

এদিকে জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থার মুখপাত্র চার্লি ইয়াক্সলে বলেন, "এ পর্যন্ত ১৪৭ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। এখনও নারী ও শিশুসহ প্রায় ১৫০ জন অভিবাসী নিখোঁজ রয়েছেন। তারা সাগরের পানিতে ডুবে মারা গেছেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।"

আন্তর্জাতিক উদ্ধার কমিটি বলছে, এই ট্রাজেডি লিবিয়া থেকে উদ্ভূত মানবিক সংকট এবং ভূমধ্যসাগরে অনুসন্ধান ও উদ্ধার অভিযানের জরুরি প্রয়োজনের বিষয়টি তুলে ধরছে।

জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক হাই কমিশনার ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি বলেন, চলতি বছরে এটাই ভূমধ্যসাগরে সংঘটিত সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ঘটনা।

উল্লেখ্য, গত মে মাসে লিবিয়া থেকে ইউরোপগামী একটি নৌকা ডুবে অন্তত ৬৫ জন অভিবাসীর মৃত্যু হয়।

জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা জানায়, এ বছরের প্রথম চার মাসে ভূমধ্যসাগরের একই রুটে প্রায় ১৬৪ জন অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে।