• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:৪৭ সকাল

নিউটনের গতিসূত্র 'ভুল' প্রমাণ করলেন ভারতীয় বিজ্ঞানী!

  • প্রকাশিত ০৩:৩১ বিকেল আগস্ট ১৯, ২০১৯
অজয় শর্মা
শনিবারের সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদদের সাথে কথা বলছেন অজয় শর্মা। ছবি: সংগৃহীত

নিউটনের গতিসূত্র সংশোধনে তার প্রস্তাব তত্ত্বীয়ভাবে সারাবিশ্বের বিজ্ঞানীদের কাছে স্বীকৃত হলেও পরীক্ষাগারে প্রমাণে প্রয়োজনীয় গবেষণার জন্য নরেন্দ্র মোদীর কাছে অর্থ সাহায্য চেয়েছেন তিনি 

২০ বছর আগে এক বিজ্ঞান সাময়িকীতে ভারতের হিমাচল প্রদেশের বিজ্ঞানী অজয় শর্মা লিখেছিলেন নিউটনের সূত্রে সং শোধনী আনা সম্ভব। সেখানে তিনি নিউটনের গতিবিদ্যার তৃতীয় সূত্রকে সংশোধিত আকারে উপস্থাপন করেছিলেন। তিনি লিখেছিলেন, প্রতিটি ক্রিয়ার প্রতিক্রিয়া সমান, কম বা বেশিও হতে পারে।

আজ ২০বছর পর তার প্রস্তাব সারাবিশ্বের বৈজ্ঞানিকদের কাছে তত্ত্বীয়ভাবে স্বীকৃত হলেও দরকার পরীক্ষার মাধ্যমে হাত-কলমে প্রমাণ। তার জন্য আরও কিছু গবেষণা করা প্রয়োজন। সেজন্য লাগবে অর্থ। আর এই প্রয়োজনীয় অর্থের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সহযোগিতা চেয়েছেন অজয় শর্মা। গত শনিবার (১৭ আগস্ট) শিমলায় এক সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রীর কাছে তিনি এই সাহায্য প্রার্থনা করেন।

ভারতের গণমাধ্যম দ্য স্টেটসম্যানকে তিনি বলেন, “৩৩৩ বছরের পুরনো নিউটনের তৃতীয় সূত্রটির পরীক্ষামূলক সংস্কার করা সম্ভব; আর এজন্য কিছু পরীক্ষার প্রয়োজন আছে। দেশ ও বিদেশের নামি বিজ্ঞানীরা এই পরামর্শই দিয়েছেন। এজন্য খরচ হবে ১০ থেকে ১২ লাখ রুপি।”

উল্লেখ্য, নিউটনের তৃতীয়সূত্রের ওজন, আকার কিংবা দূরত্ব কোনো প্রভাব ফেলে না। অজয় শর্মার দাবি, বস্তুর আকারকে আমলে না নেওয়াটা বড় ভুল। তার মতে প্রতিক্রিয়া কেমন হবে তা বস্তুর আকারের উপর নির্ভরশীল।

অজয় বলেন, “বিষয়টি চূড়ান্তভাবে প্রমাণের জন্য সূক্ষ্ম কিছু পরীক্ষা করা দরকার। এখন পর্যযন্ত নিউটনের তৃতীয়সূত্র কোনো পরীক্ষা ছাড়াই মেনে নেওয়া হয়েছে; এটা বিজ্ঞানসম্মত নয়।”

গত জুলাইয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী হর্ষবর্ধন অজয় শর্মার গবেষণার প্রস্তাব দিল্লির কাউন্সিল অফ সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের মহাপরিচালকের কাছে পাঠালেও তেমন সাড়া পাননি তিনি।

নিউটনীয় মেকানিক্সের ডোমেইনের মধ্যে পরীক্ষার মাধ্যমে নিউটনের সূত্রের সীমাবদ্ধতা প্রমাণ করা সম্ভব বলে ২০১৮ সালে জুন ইন্টারন্যাশনাল জার্নাল ফাউন্ডেশনস অব ফিজিক্স'র সম্পাদক কার্লো রোভেলো অজয়কে জানান।

এমনকি ইন্ডিয়ান একাডেমি অফ সায়েন্সের আন্তর্জাতিক জার্নাল ‘কারেন্ট সায়েন্স’ অজয়কে তার গবেষণার জন্য অভিনন্দন জানিয়েছে। কারেন্ট সায়েন্সের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, নিউটনের তৃতীয় সূত্রে সত্যিই অস্পষ্টতা আছে। আর বিষয়টি সামনে আনার জন্য অজয়ের অভিনন্দন প্রাপ্য।

উল্লেখ্য, দীর্ঘ ৩৬বছর নিউটন, আইনস্টাইন আর আর্কিমিডিসের তত্ত্ব নিয়ে গবেষণা করেছেন বিজ্ঞানী অজয় শর্মা।