• মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:২০ রাত

বাবাকে পাঠানো মেগান মার্কেলের চিঠি প্রকাশ করায় মামলা

  • প্রকাশিত ১০:০৬ সকাল অক্টোবর ৩, ২০১৯
প্রিন্স হ্যারি এবং ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল
প্রিন্স হ্যারি এবং ডাচেস অব সাসেক্স মেগান মার্কেল (ফাইল ছবি)। ছবি: রয়টার্স

প্রিন্স হ্যারি বলেন, ‘আমার ভালোবাসার মানুষদের এমনভাবে পণ্য বানানো হয়েছিল যে তাদের আর প্রকৃত মানুষ হিসেবে বিবেচনা করা হতো না৷ আমি আমার মা-কে হারিয়েছি এবং এখন একই শক্তিশালী শক্তি আমার স্ত্রীকেও ভুক্তভোগী বানাতে চাচ্ছে’

বাবার কাছে একটি চিঠি পাঠিয়েছিলেন ব্রিটিশ রাজবধূ মেগান মার্কেল৷ ব্রিটেনের ট্যাবলয়েড ‘মেইল অন সানডে' তা হাতে পেয়ে প্রকাশ করে দেয়৷

মঙ্গলবার (১ অক্টোবর) মেগান, দ্য ডাচেস অব সাসেক্স ও তার স্বামী প্রিন্স হ্যারি জানান, মেইল অন সানডে পত্রিকার প্রকাশকের বিরুদ্ধে আইনি প্রক্রিয়া শুরু করেছেন তারা৷ পত্রিকাটি বাবাকে লেখা মেগানের একটি ব্যক্তিগত চিঠি প্রকাশ করেছে৷ এক প্রতিবেদনে এখবর জানিয়েছে ডয়েচে ভেলে।

চলতিবছরের শুরুর দিকে ট্যাবলয়েডটি মেগানের হাতে লেখা একটি চিঠি প্রকাশ করে, যেটি তিনি তার বাবা টমাস মার্কেলকে পাঠিয়েছিলেন৷ চিঠিতে তিনি বাবার সঙ্গে তার ভেঙেপড়া সম্পর্ক ও ট্যাবলয়েড গণমাধ্যমের সঙ্গে বাবার যোগাযোগের কারণে সৃষ্ট মনোবেদনার কথা জানান৷

মেয়ের লেখা সেই চিঠিটি মেইল অন সানডে’কে দিয়েছেন টমাস মার্কেল৷

হ্যারি দম্পতি ব্রিটিশ ট্যাবলয়েডটির বিরুদ্ধে ‘ব্যক্তিগত তথ্যের অপব্যবহার, মেধাসত্ব আইন ভঙ্গ ও তথ্য সুরক্ষা অ্যাক্ট ২০১৮' অবমাননার অভিযোগ এনেছেন৷

এদিকে, নিজের ব্যক্তিগত ওয়েবসাইটে একটি বিজ্ঞপ্তিও প্রকাশ করেছেন হ্যারি৷ সেখানে তিনি পত্রিকাটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্তের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন৷

তিনি লিখেছেন, বারংবার চেষ্টার পরও পত্রিকাটিতে মেগান ও তার বাবার মধ্যকার তিক্ত সম্পর্ক নিয়ে ধারাবাহিকভাবে লেখালেখি থামানো যায়নি৷ পত্রিকাটি মেগানের ব্যক্তিগত চিঠি প্রকাশ করায় তাদের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সুযোগ তৈরি হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি৷

ব্রিটিশ ট্যাবলয়েডটি ‘ইচ্ছাকৃতভাবে ধ্বংসাত্মক মানসিকতা' নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে লেখালেখি করেছে উল্লেখ করে এর কুফলের উদাহরণ হিসেবে নিজের মায়ের কথাও উল্লেখ করেছেন প্রিন্স হ্যারি৷

‘‘আমি দেখেছি যে, আমি ভালোবাসি এমন একজনকে এমনভাবে পণ্যে পরিণত করা হয়েছিল যে, তাদের আর প্রকৃত মানুষ হিসেবে দেখা বা বিবেচনা করা হতো না৷ আমি আমার মা-কে হারিয়েছি এবং এখন একই শক্তিশালী শক্তি আমার স্ত্রীকেও ভুক্তভোগী বানাতে চাচ্ছে,'' লিখেছেন হ্যারি৷