• মঙ্গলবার, আগস্ট ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:২৩ দুপুর

পুলিশকে অপহরণ করে 'আনন্দভ্রমণে' নিয়ে গেল ৩ মদ্যপ

  • প্রকাশিত ০৭:১০ রাত জুলাই ২০, ২০১৯
মদ
প্রতীকী ছবি

তর্কাতর্কি ও মারধরের এক পর্যায়ে সেই ট্রাফিক পুলিশকে ভিতরে ঠেলে ঢুকিয়ে দিয়ে তারা তীব্র গতিতে গাড়ি ছোটাতে থাকে

ভারতের মুম্বাইতে মাতলামি করে রাস্তায় যানজট তৈরির পর এক ট্রাফিক পুলিশকে মারধর ও অপহরণ করে রাতভর শহরে ঘুরে 'আনন্দভ্রমণ' করেছে তিন মদ্যপ। এঘটনায় দুই জনকে গ্রেফতার করা গেলেও পুলিশের চোখে ধুলা দিয়ে পালায় তৃতীয় অভিযুক্ত। 

ইন্ডিয়া টাইমস জানায়,  বুধবার (১৭ জুলাই) গভীর রাতে মদ্যপ অবস্থায় মুম্বাইয়ের ছেড়া নগর এলাকার ব্যস্ত রাস্তার মাঝে গাড়ি থামিয়ে দেয় তিন মদ্যপ তরুণ। এর ফলে সেই এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে এসে পৌঁছান পুলিশ কনস্টেবল বিকাশ মুন্ডে। রাস্তার মাঝে ধুসর রঙের হোন্ডা সিটিকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখে তিনি গাড়িটি একপাশে এনে দাঁড় করানোর নির্দেশ দেন। 

মুন্ডের দাবি, গাড়ির জানলায় বার দুয়েক টোকা মারার পরে কাচ নামায় এক তরুণ। সে মদের নেশায় টালমাটাল ছিল এবং গাড়ির ভিতর থেকে ঝাঁঝালো মদের গন্ধ বের হচ্ছিল। পুলিশ সদস্যের নির্দেশ শোনার পরে গাড়ি থেকে তিন মদ্যপ যুবক নেমে এসে তার সঙ্গে তর্ক শুরু করে। এরপর তাকে মারধরও করতে শুরু করে তারা। শুধু তাই নয়, তারপর মুন্ডেকে ভিতরে ঠেলে ঢুকিয়ে দিয়ে তারা তীব্র গতিতে গাড়ি ছোটাতে থাকে। 

এঅবস্থা দেখে ওয়াকিটকি থেকে পুলিশ কন্ট্রোল রুমে খবর দেন মুন্ডের এক সহকর্মী। এরপর তিন কিমি দূরে ঘাটকোপারে ইস্টার্ন এক্সপ্রেস হাইওয়েতে ছুটন্ত গাড়িটি আটকায় পুলিশবাহিনী। গাড়ি বাজেয়াপ্ত করে দুই যুবক বিরাজ এস শাইনি (২১) ও গৌরব এম পানজোয়ানিকে (২২) গ্রেফতার করা হয়। তৃতীয় জন রাজ সিং ঘটনাস্থল ছেড়ে পালায়। তার খোঁজে তল্লাশি অভিযানে নেমেছে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত যুবকরা যে অতিরিক্ত মাত্রায় মদ্যপান করেছিল, তা ধরা পড়ে ব্রেথ অ্যানালাইজার পরীক্ষায়। ভারতীয় দণ্ডবিধির একাধিক ধারা এবং মোটোর ভেহিকলস আইনে তাদের নামে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ।