• শুক্রবার, নভেম্বর ১৫, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৬ রাত

তথ্যমন্ত্রী: খালেদা জিয়া রাজবন্দী নন

  • প্রকাশিত ১০:২৭ রাত মার্চ ১৫, ২০১৯
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ
শুক্রবার চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়াম মাঠে তৃতীয় বীমা মেলার উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ছবি: পিআইডি।

শুক্রবার চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়াম মাঠে তৃতীয় বীমা মেলার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া রাজবন্দী নন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, "বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া রাজবন্দী নন। তিনি আদালতের রায়ে শাস্তিপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে আছেন। দুর্নীতির দায়ে কারাগারে আছেন। তাকে মুক্ত করার একমাত্র পথ হচ্ছে আদালত এবং আইন। আইন ও আদালতের মাধ্যমে তার মুক্তি মিলতে পারে, অন্য কোনোভাবে তাকে মুক্ত করার সুযোগ নেই।"

শুক্রবার চট্টগ্রাম এমএ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়াম মাঠে তৃতীয় বীমা মেলার উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

বিএনপি কিংবা ঐক্যফ্রন্ট ডাকসু নির্বাচনকে নিয়ে ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করছে উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, "ছাত্রদল কত ভোট পেয়েছে সেটি বলতেও তারা লজ্জা পাচ্ছে। যারা বামপন্থী সংগঠন করে তাদের প্রতি যথেষ্ট সম্মান-শ্রদ্ধা রেখে বলতে চাই, বাম-ডান সবাই মিলে চেষ্টা করেছিল ছাত্রলীগকে হটিয়ে দেয়ার জন্য। কিন্তু বাম-ডান সবাই একত্রিত হয়েও ছাত্রলীগের বিজয় ঠেকাতে পারেনি।"

হাছান মাহমুদ বলেন, "২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন হয়েছে। নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত হয়েছে। এটি ইতিবাচক দিক। সেখানে কিছু ভুল-ত্রুটি হয়েছে সেটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে। তদন্ত কমিটি করেছে। নির্বাচনের দিনই তাৎক্ষণিক কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে"।

তিনি বলেন, "যারা অভিযোগ করছে তারা নিজেরাই নির্বাচনে জয়ী হয়েছে। যে দু-একটি হলে তারা কারচুপির অভিযোগ তুলেছেন সেখানে তাদের শীর্ষ নেতারা সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছেন। কীভাবে বেশি ভোট পেলেন? এর মধ্য দিয়ে প্রমাণিত হয়, সার্বিকভাবে সামান্য কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি বাদে ভালো নির্বাচন হয়েছে। ডাকসুতে যারা নির্বাচিত হয়েছেন তারা ছাত্রদের রায়ের প্রতি সম্মান দেখিয়ে তাদের কার্যক্রম শুরু করবে। এটিই ছাত্রদের প্রত্যাশা বলে আমি মনে করি।"

এর আগে ফিতা কেটে, বেলুন ও পায়রা উড়িয়ে তৃতীয় বীমা মেলার উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী। বীমা দাবির তিনটি চেক বিতরণ করেন তিনি।

বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান মো. শফিকুর রহমান পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, জীবন বীমা করপোরেশনের চেয়ারম্যান সেলিনা আফরোজ ও চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নান।