• শুক্রবার, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০৪ রাত

ফখরুল: সুশাসন নেই, তাই ঈদ নিয়ে বিভ্রান্তি

  • প্রকাশিত ০৪:৩৬ বিকেল জুন ৫, ২০১৯
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সোমবার বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশান কার্যালয়ে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানান। ছবি : রাজীব ধর/ ঢাকা ট্রিবিউন
বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ফাইল ছবি- রাজীব ধর/ঢাকা ট্রিবিউন

‘এই সরকার, জনগণের কষ্টের ব্যাপারগুলো কোনও দিন সঠিকভাবে উপলব্ধি করেনি, করার প্রয়োজনও মনে করে না। সে কারণেই জনগণের ভোগান্তি হয়, কষ্ট পায়।’

দেশে সুশাসন নেই বলেই চাঁদ দেখা ও ঈদ নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

৫ জুন, বুধবার সকাল সোয়া ১১টার দিকে রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজার জিয়ারত শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ফখরুল এ মন্তব্য করেন। খবর বাংলা ট্রিবিউনের। 

ঈদুল ফিতরের চাঁদ দেখা নিয়ে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অবস্থান পরিবর্তনের বিষয়ে কঠোর সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, “সুশাসন না থাকলে যা হয়, তাই হয়েছে। উনারা ৮টা-সাড়ে ৮টার মধ্যে বললেন, চাঁদ দেখা যায়নি। ঈদের তারিখও বলে দিয়েছেন, বৃহস্পতিবার ঈদ হবে। বলা হলো, কোথাও চাঁদ দেখা যায়নি। এগারোটার দিকে তারা সিদ্ধান্ত সংশোধন করলেন। ধর্ম প্রতিমন্ত্রী নিজেই বললেন, কোথাও থেকে তারা খবর পেয়েছেন, ঈদ হবে। এতে করে সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়, তারা ভোগান্তিতে পড়েন।”

ফখরুল অভিযোগ করেন, “এই সরকার, জনগণের কষ্টের ব্যাপারগুলো কোনও দিন সঠিকভাবে উপলব্ধি করেনি, করার প্রয়োজনও মনে করে না। সে কারণেই জনগণের ভোগান্তি হয়, কষ্ট পায়।”

চাঁদ দেখা নিয়ে সরকারের সিদ্ধান্ত পরিবর্তনের বিষয়টিতে কী প্রকাশ পেয়েছে- বেসরকারি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকের প্রশ্নে মির্জা ফখরুল বলেন, “আমি তো বললামই যে, সুশাসনের অভাবের কারণে এমনটি ঘটেছে। আমার কাছে এখনও মনে হয় সুশাসন নেই বলেই এমন ঘটনা ঘটেছে।” 

অপর এক প্রশ্নের জবাবে বিএনপির মহাসচিব বলেন, “এ সরকারের সবচেয়ে বড় সমস্যা, জনগণের সঙ্গে তাদের কোনও সম্পর্ক নেই। তাদের কোনও জবাবদিহিতা নেই। যদি দায়িত্বহীনতা থাকে, দায়িত্বশীলতা না থাকে, তাহলে এ ধরনের ঘটনা ঘটবেই। তাদেরকে তো জনগণের কাছে জবাব দিতে হয় না। তারা একটি নির্বাচন করেছে, যেই নির্বাচনে জনগণের কোনও প্রয়োজন ছিল না। এরপর তারা দেশ চালাচ্ছেন অন্যায় ও বেআইনিভাবে।”

প্রতি বছরের মতো এবারের ঈদেও জিয়াউর রহমানের সমাধিতে বিএনপি নেতাকর্মীরা শ্রদ্ধা জানিয়েছেন ও ফাতেহা পাঠ করে দোয়া করেছেন। এসময় বিএনপি মহাসচিবের সঙ্গে দলের ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এ জাহিদ হোসেন, উপদেষ্টা আবদুস সালাম, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, চেয়ারপারসনের মিডিয়া উইং সদস্য শায়রুল কবির খান, শামসুদ্দিন দিদারসহসহ কেন্দ্রীয় ও ঢাকা মহানগরের নেতাকর্মীরা অংশ নেন।