• মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৭:৩৯ রাত

বিদেশি কূটনীতিকদের যা বললো ঐক্যফ্রন্ট

  • প্রকাশিত ০৯:৫০ রাত সেপ্টেম্বর ৪, ২০১৯
জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট

‘গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর কোন ধরনের জাতীয় নির্বাচন হয়েছে তা দেশের মানুষ এবং বিদেশিরা জানে। এ বিষয়ে বিদেশি দূতরা আমাদের বক্তব্য শুনেছে।’

বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা ও ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের কারাবরণসহ দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি এবং কিছু রাজনৈতিক বিষয়ে বুধবার ঢাকাস্থ বিদেশি কূটনীতিকদের অবহিত করেছে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট।

সকাল ১০টায় শুরু হওয়া ২ ঘণ্টাব্যাপী এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খানের গুলশানের বাসায়।

ড. কামাল ছাড়াও বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের সভাপতি আ স ম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না এবং গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, কানাডা এবং ইউএনডিপিসহ বিভিন্নি দেশের কূটনীতিকরা ব্রিফিংয়ে যোগ দেন।

বৈঠক শেষে ড. কামাল সাংবাকিদের বলেন, “তারা দেশের বর্তমান পরিস্থিতি সম্পর্কে কূটনীতিকদের সাথে আলোচনা করেছেন। তারা (কূটনীতিকরা) দেশের সার্বিক পরিস্থিতি সম্পর্কে আমাদের কাছে জানতে চান এবং আমরা আমাদের মতামত তুলে ধরি।”

ড. কামাল বলেন, “গত বছরের ৩০ ডিসেম্বর কোন ধরনের জাতীয় নির্বাচন হয়েছে তা দেশের মানুষ এবং বিদেশিরা জানে। এ বিষয়ে বিদেশি দূতরা আমাদের বক্তব্য শুনেছে।”

আব্দুর রব বলেন, তারা দেশের বিভিন্ন রাজনৈতিক বিষয়ে কূটনীতিকদের সাথে মত বিনিময় করেছেন।

সুব্রত চৌধুরী বলেন, কূটনীতিকরা তাদের বক্তব্য লিখে নিয়েছেন। তবে রাজনৈতিক বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেননি।

ঐক্যফ্রন্টের আরেক নেতা নাম না প্রকাশ করার শর্তে বলেন, খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা, তার মামলার উন্নতি, সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনকে কারাগারে প্রেরণ, ‘মিথ্যা’ মামলায় বিএনপি নেতাদের হয়রানি এবং গত নির্বাচন নিয়ে জোটের অবস্থান তারা কূটনীতিকদের অবহিত করেন।