• রবিবার, অক্টোবর ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৩ রাত

ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিল: মির্জা আব্বাসের বাড়িতে চলছে ভোটগ্রহণ

  • প্রকাশিত ১০:৫৫ রাত সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৯
ছাত্রদল
মির্জা আব্বাসের বাড়িতে ভোট একত্রিত হয়েছেন ছাত্রদলের কাউন্সিলররা। ছবি: সংগৃহীত

‘নানা প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে আমরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নেতা নির্বাচনের কাজটি শুরু করেছি। ভোট শুরু হয়ে গেছে। টানা ভোট হবে, কোনো বিরতি নেই। ভোটের পর আমরা দ্রুতই গণনার কাজ শুরু করে ফলও ঘোষণা করবো’

রাজধানীর শাহজাহানপুরে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাসের বাড়িতে ছাত্রদলের ষষ্ঠ কাউন্সিলের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

বুধবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টা ৫০ মিনিটে এই ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। খবর বাংলা ট্রিবিউনের।

এ্যানী বলেন, “ছাত্রদলের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে ভোটগ্রহণ চলছে।”

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির আহ্বায়ক খায়রুল কবির খোকন বলেন, “নানা প্রতিবন্ধকতা অতিক্রম করে আমরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় নেতা নির্বাচনের কাজটি শুরু করেছি। ভোট শুরু হয়ে গেছে। টানা ভোট হবে, কোনো বিরতি নেই। ভোটের পর আমরা দ্রুতই গণনার কাজ শুরু করে ফলও ঘোষণা করবো।”

জানা গেছে, রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন বিএনপি যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানী।

ছাত্রদলের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির তফসিল অনুযায়ী, সংগঠনটির ১০টি সাংগঠনিক বিভাগের ১১৬ শাখায় মোট ৫৬৬ জন ভোটার রয়েছেন। এরমধ্যে বরিশাল বিভাগের ৯ শাখায় ৪৫ ভোট, ঢাকা বিভাগের ২৯ শাখায় ১৩৮ ভোট, চট্টগ্রাম বিভাগের ১২ শাখায় ৫৮ ভোট, কুমিল্লা বিভাগের ৬ শাখায় ৩০ ভোট, খুলনা বিভাগের ১৪ শাখায় ৭০ ভোট, ময়মনসিংহ বিভাগের ৯ শাখায় ৪৫ ভোট, রাজশাহী বিভাগের ১১ শাখায় ৫২ ভোট, সিলেট বিভাগের ৭ শাখায় ৩৫ ভোট, রংপুর বিভাগের ১৩ শাখায় ৬৩ ভোট ও ফরিদপুর বিভাগের ৬ শাখায় ৩০ ভোট রয়েছে।

সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদে প্রার্থী যারা

ছাত্রদলের কাউন্সিলে সভাপতি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৯ জন। তারা হলেন—কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, মাহমুদুল হাসান বাপ্পি, হাফিজুর রহমান, রিয়াদ মো. তানভীর রেজা রুবেল, মো. এরশাদ খান, মো. ফজলুর রহমান খোকন, এসএম সাজিদ হাসান বাবু, এবিএম মাহমুদ আলম সরদার ও মোহাম্মদ মামুন বিল্লাহ।

সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ১৭ জন। তারা হলেন—মো. জাকিরুল ইসলাম জাকির, মোহাম্মদ কারিমুল হাই (নাঈম), মাজেদুল ইসলাম রুমন, ডালিয়া রহমান, মো. আমিনুর রহমান আমিন, শেখ আবু তাহের, শাহ নাওয়াজ, সাদিকুর রহমান, কেএম সাখাওয়াত হোসাইন, সিরাজুল ইসলাম, মো. ইকবাল হোসেন শ্যামল, মো. জুয়েল হাওলাদার (সাইফ মাহমুদ জুয়েল), মো. হাসান (তানজিল হাসান), মুন্সি আনিসুর রহমান, মো. মিজানুর রহমান শরিফ, শেখ মো. মশিউর রহমান রনি, মোস্তাফিজুর রহমান, সোহেল রানা ও কাজী মাজহারুল ইসলাম।

এরআগে, বিকেলে সংগঠনের নির্দেশনায় ছাত্রদলের কাউন্সিলররা ঢাকাসহ সারাদেশে থেকে নয়াপল্টনে জড়ো হন। পরে সন্ধ্যায় কাউন্সিলর ও প্রার্থীদের নিয়ে বৈঠকে বসেন কাউন্সিলের দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারা। স্কাইপের মাধ্যমে বৈঠকে অংশ নেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ সেপ্টেম্বর ছাত্রদলের ৬ষ্ঠ কাউন্সিল অনুষ্ঠানের কথা ছিল। কিন্তু ১২ সেপ্টেম্বর সদ্যবিলুপ্ত রাজিব-আকরাম কমিটির সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আমানউল্লাহ আমানের এক আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ছাত্রদলের কাউন্সিলে অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা জারি করেন আদালত। একই সঙ্গে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, খায়রুল কবির খোকনসহ ১০ বিবাদীকে ১০ দিনের মধ্যে নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়। ওই মামলার নিষ্পত্তি হওয়ার আগেই কাউন্সিলের ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ, ১৯৯২ সালে ছাত্রদলের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়। ইলিয়াস আলী ও রুহুল কবির রিজভীর নেতৃত্বাধীন সেই কমিটি মাত্র তিন মাসের মাথায় ভেঙে দেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এরপর থেকে বিএনপির মনোনীত নেতাদের দিয়ে ছাত্রদলের কমিটি গঠিত হয়ে আসছিল।