• সোমবার, মে ২০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:৩৬ রাত

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে দ্যুতি ছড়াচ্ছেন বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত হামজা

  • প্রকাশিত ০৭:০০ রাত এপ্রিল ৩০, ২০১৯
হামজা চৌধুরী
ছবি: এএফপি

তিনিই প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত, যিনি সুযোগ করে নিয়েছেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা কোনও ক্লাবে।

পেশাদার ফুটবলের সবচেয়ে প্রতিযোগিতাপূর্ণ আসরগুলোর একটি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ। ধুন্ধুমার প্রতিযোগিতা আর অর্থ-সম্মান-যশ-খ্যাতির হাতছানি থাকায় বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিভাবান ফুটবলাররা চান এই মঞ্চে নিজেদের অবস্থান করে নিতে। বাংলাদেশের ফুটবল ইউরোপের যে কোনও পেশাদার ফুটবল লিগের চেয়ে পিছিয়ে থাকায় এখানকার খেলোয়াড়দের জন্য ইউরোপের লিগে খেলাটা এখনও সম্ভব হয়ে ওঠেনি।

তবে, এক্ষেত্রে বাংলাদেশের গর্ব বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ ফুটবলার হামজা চৌধুরী। তিনিই প্রথম বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত, যিনি সুযোগ করে নিয়েছেন ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে খেলা কোনও ক্লাবে। ইএফএল কাপে ২০১৭ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর লেস্টার সিটির হয়ে লিভারপুলের বিপক্ষে অভিষেক হয় তার।

আর ওই বছরেরই ২৮ নভেম্বর ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে টটেনহ্যাম হটস্পারের বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে ইংল্যান্ডের সর্বোচ্চ লিগে অভিষিক্ত হন তিনি। হামজাকে সেদিন মনোবল জোগাতে গ্যালারিতে উপস্থিত ছিলেন ঘনিষ্ঠ স্বজনরা। ২০১৮ সালের ১৪ এপ্রিল বার্নলির বিপক্ষের ম্যাচে প্রথমবারের মতো লেস্টার শুরুর একাদশে ছিলেন হামজা।

১৯৯৭ সালে পহেলা অক্টোবর জন্ম নেওয়া হামজার বাবা একজন গ্রানাডিয়ান এবং মা বাংলাদেশি। ২০১৮ সালে ইংল্যান্ডের অনুর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে প্রথমবারের মতো মাঠে নামেন ব্রিটিশ-বাংলাদেশি এই ফুটবলার। চীনের বিপক্ষে সেই ম্যাচে ২-১ গোলে জয় পেয়েছিল তার দল। এখন পর্যন্ত জাতীয় দলের বয়সভিত্তিক টিমে খেলা ছয়টি ম্যাচে আশাব্যঞ্জক পারফরমেন্স থাকায় ভবিষ্যতে মূল দলের জন্য সম্ভাবনাময় একজন খেলোয়াড় হিসেবে বিবেচিত হচ্ছেন হামজা।

শোনা যায়, ১৬ বছর বয়সে লেস্টারের একাডেমিতে আসা এই তরুণের দিকে চোখ ছিল কয়েকটি বড় ক্লাবের। বয়সভিত্তিক দলের অধিনায়কত্ব আর নজরকাড়া পারফরমেন্সই ছিল এর মূল কারণ।

বর্তমানে হামজাকে ধারে অন্য ক্লাবে খেলতে পাঠিয়েছে তার ক্লাব লেস্টার। সেখানেও দ্যুতি ছড়াচ্ছেন তিনি।