• বুধবার, অক্টোবর ১৬, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:১৭ সকাল

ট্রাইবেকারে গোল করতে ব্যর্থ হওয়ায় কলম্বিয়ার ফুটবলারকে হত্যার হুমকি

  • প্রকাশিত ১২:৫২ দুপুর জুলাই ২, ২০১৯
উইলিয়াম টেসিলো
কলম্বিয়ান ডিফেন্ডার উইলিয়াম টেসিলো। ছবি: এএফপি

শুক্রবার চিলির বিপক্ষে ট্রাইবেকারে সর্বশেষ পেনাল্টি থেকে গোল করতে টেসিলো ব্যর্থ হওয়ায় টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নেয় কলম্বিয়া

ব্রাজিলে চলমান কোপা আমেরিকায় ট্রাইবেকারে গোল করতে ব্যর্থ হওয়ায় কলম্বিয়ার ডিফেন্ডার উইলিয়াম টেসিলোকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। বার্তা সংস্থা এপি'র একটি প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

রবিবার প্রথম সাংবাদিকদের এ হুমকির কথা প্রকাশ করেন উইলিয়াম টেসিলোর স্ত্রী ড্যানিয়েলা। ইনস্টাগ্রামে তার  জানান, আত্মঘাতী গোলে ১৯৯৪ সালের বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের পর কলম্বিয়ার সাবেক ডিফেন্ডার আন্দ্রেস এসকোবারকে হত্যার বিষয়টিও কয়েকবার হুমকিতে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রসঙ্গত, আত্মঘাতী গোলে ১৯৯৪ এর বিশ্বকাপ থেকে কলম্বিয়ার বিদায়ের কারণে হত্যা করা হয়েছিল আন্দ্রেস এসকোবারকে।  

এ প্রসঙ্গে উইলিয়াম সোমবার সাংবাদিকদের বলেন, "শুক্রবার কোপার কোয়ার্টার ফাইনালে পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হওয়ায় আমাকে এবং আমার পরিবারকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তারা আমাকে এবং আমার স্ত্রীকে হুমকি দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্শুক্রবার চিলির বিপক্ষে পাঁচ নম্বর পেনাল্টি থেকে গোল করতে ব্যর্থ হন টেসিলো। ওই ম্যাচে কলম্বিয়া ৫-৪ গোলে হেরে কোপা থেকে বিদায় নেয়।

এ প্রসঙ্গে টেসিলোর বাবা কারাকোল রেডিওকে বলেন, "সর্বশেষ পেনাল্টি শট নেয়ার জন্য সবাই অপারগতা প্রকাশ করলে টেসিলো ওই পেনাল্টি শটটি নেন। সে গোল করতে পারবে বলে আমার বিশ্বাস ছিল। কিন্তু এটা নিয়ে এখন আমাদেরকে যে হুমকি দেয়া হচ্ছে তা দেখে প্রার্থনা করা ছাড়া আমাদের আর কিছুই করার নেই। আপনাদের বুঝতে হবে যে এটা ফুটবল এবং খেলায় আপনি জিততে বা হারতে পারেন"।

এর আগে ২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপে জাপানের বিপক্ষে কলম্বিয়ার ২-১ গোলের পরাজয়ের পর ডিফেন্ডার কার্লোস সানচেজকেও হত্যার হুমকি দেয়া হয়।

এছাড়া চলতি বছরে স্থানীয় প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়ায় কলম্বিয়ার ক্লাব আমেরিকা দ্য ক্যালির একজন মালিককে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। পরে তিনি শহর ছাড়তে বাধ্য হন।

এদিকে হত্যার হুমকির বিষয়টি স্থানীয় কর্তৃপক্ষকে জানিয়েছেন টেসিলোর পরিবার। তারা হুমকির পেছনে কারা রয়েছেন তা খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে বলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে।