• সোমবার, নভেম্বর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩১ রাত

প্রতিযোগিতা আইন লঙ্ঘন: গুগলকে পাঁচশ কোটি ডলার জরিমানা

  • প্রকাশিত ০৩:৫৪ বিকেল জুলাই ১৯, ২০১৮
googleplex-google-headquarters-california-mountain-view-ca-usa-may-office-buildings-93111097-1531993576172.jpg

অ্যান্ড্রয়েড সিস্টেমের মোবাইলে বিভিন্ন অ্যাপ এবং সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগল ব্যবহারে ব্যবহারকারীদের বাধ্য করার অভিযোগে গুগলকে এ জরিমানা করা হয়েছে

প্রতিযোগিতা আইন লঙ্ঘনের দায়ে ইন্টারনেট সার্চ ইঞ্জিন কোম্পানি গুগলকে ৫০০ কোটি মার্কিন ডলার জরিমানা করেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ)। বাংলাদেশি টাকায় এই অর্থের পরিমাণ প্রায় ৪২ হাজার কোটি টাকা।

অ্যান্ড্রয়েড সিস্টেমের মোবাইলে বিভিন্ন অ্যাপ এবং সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগল ব্যবহারে ব্যবহারকারীদের বাধ্য করার অভিযোগে গুগলকে এ জরিমানা করা হয়েছে। প্রতিযোগিতা আইন লঙ্ঘনের দায়ে এখন পর্যন্ত এটি গুগলকে করা সবচেয়ে বড় অঙ্কের জরিমানা।

মার্কিন গণমাধ্যম ব্লুমবার্গের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গুগলের এ জরিমানা ইইউর বাজেটে নেদারল্যান্ডস প্রতিবছর যে অর্থ দেয় তার সমান। এছাড়া সার্চ ইঞ্জিন হিসেবে গুগল ব্যবহারে গ্রাহককে বাধ্য না করতে ৯০ দিনের সময়সীমাও বেঁধে দিয়েছে ইইউ। গত বছরও গুগলকে ইইউর জরিমানার মুখে পড়তে হয়েছিল। তবে সেই জরিমানার পরিমাণ ছিল এটার চেয়ে, ২৭০ কোটি মার্কিন ডলার। সব মিলিয়ে এখন গুগলকে জরিমানা গুণতে হবে ৭৭০ কোটি ডলার।

ইইউ উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেছে, গুগল তাদের অ্যান্ড্রয়েড ইকোসিস্টেমে শুধু গুগলের অ্যাপ ডিফল্ট হিসেবে রাখতে ফোনের প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানগুলোকে চাপ দিচ্ছিল। এগুলোর মধ্যে ছিল যেসব প্রতিষ্ঠান গুগলের ক্রোম বা ক্রোম অ্যাপ তাদের ফোনে আগে থেকে ইনস্টল করত না, তাদের ফোনে প্লে স্টোর রাখার সুযোগ রাখে না গুগল।

ইইউর কমপিটিশন কমিশনার মার্গারেট ভেস্তাগার এ বিষয়ে বলেন, সার্চ ইঞ্জিনের বাজারে আধিপত্য বজায় রাখতে অ্যান্ড্রয়েডে অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করেছে গুগল। এ প্রবণতা অন্য প্রতিযোগীদের ক্ষেত্রে নতুন উদ্ভাবন ও প্রতিযোগিতার পথকে রুদ্ধ করেছে।

মার্গারেট ভেস্তাগার গুগলের প্রধান নির্বাহী সুন্দর পিচাইকে জরিমানা পরিশোধ করার জন্য ডেকেছেন। এ ছাড়া মার্গারেট পিচাইকে ঘটনাগুলোর যাতে পুনরাবৃত্তি না হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে বলেছেন।

তবে জরিমানার অর্থ পরিশোধে অস্বীকৃতি জানিয়েছে গুগল কর্তৃপক্ষ। ইইউর জরিমানার সিদ্ধান্তকে আইনগতভাবে চ্যালেঞ্জ করবে বলে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। গুগলের মুখপাত্র আল ভার্নি এক বার্তায় বলেন, অ্যান্ড্রয়েড সবার জন্য অনেক বেশি বিকল্প নিয়ে এসেছে। অ্যান্ড্রয়েডের কারণে বাজারে প্রতিযোগিতা কোনোভাবেই ব্যাহত হয়নি।