• রবিবার, এপ্রিল ২১, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৩৭ রাত

বদলে যাচ্ছে পৃথিবীর দিক, দুশ্চিন্তায় বিজ্ঞানীরা

  • প্রকাশিত ০৫:৫২ সন্ধ্যা জানুয়ারী ১১, ২০১৯
কম্পাস। ছবি : সংগৃহীত
কম্পাস। ছবি : সংগৃহীত

দিগভ্রান্ত হচ্ছেন গভীর সমুদ্রে জাহাজের ক্যাপ্টেন, নাবিকরা। ভুলভ্রান্তি হয়ে যাচ্ছে স্মার্টফোনে দেখানো গুগলের ম্যাপেও।

দিক নিয়ে ব্যাপক দুশ্চিন্তায় পড়েছেন বিজ্ঞানীরা। দিগভ্রান্ত হচ্ছেন গভীর সমুদ্রে জাহাজের ক্যাপ্টেন, নাবিকরা। ভুলভ্রান্তি হয়ে যাচ্ছে স্মার্টফোনে দেখানো গুগলের ম্যাপেও। এর কারণ খুবই দ্রুত পরিবর্তন হচ্ছে পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্র। 

বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, পৃথিবীর চৌম্বক ক্ষেত্রের উত্তর মেরু ছিল কানাডার দিকে। কিন্তু বর্তমানে সেই উত্তর মেরু কানাডা থেকে অনেকটা সরে গিয়ে চলে গিয়েছে সাইবেরিয়ায়। আর সেটা ঘটেছে খুবই দ্রুত হারে।

গত ডিসেম্বরে ওয়াশিংটনে, আমেরিকান জিওফিজিক্যাল ইউনিয়নের বৈঠকে এ কথা জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট একটি আন্তর্জাতিক গবেষকদল। 

বিজ্ঞানীদের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম রাশিয়া টুডের প্রতিবেদনে বলা হয়, পৃথিবীর অভ্যন্তরে থাকা ফুটন্ত তরল লোহার স্রোত দিক বদলানোর ফলেই পার্থিব চুম্বক দিক বদলাচ্ছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কিন্তু কী কারণে এটি এতো দ্রুত ঘটছে তা ধরতে পারছেন না বিজ্ঞানীরা। 

গত বছর উত্তরমেরু আন্তর্জাতিক সময় রেখা থেকে ৫৫ কিলোমিটার হারে সরে গেছে, যা ৯০ এর দশকের আগে থেকে হওয়া এমন ঘটনার চেয়ে তিন গুণ বেশি।    

সাধারণত, বিশ্ব চৌম্বকীয় ক্ষেত্র প্রতি পাঁচ বছর পর পর দিক ঠিক রাখার জন্য আপডেট করা হয়। সে অনুযায়ী আগামী ২০২০ সালে এটি পরবর্তী আপডেট করার কথা ছিল। কিন্তু ২০১৮ সাল থেকেই ক্ষেত্রটি আস্বাভাবিক আচরণ করার কারণে জরুরিভিত্তিতে এটি আপডেট করার প্রয়োজন হয়ে পড়ে।