Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

স্বাস্থ্যমন্ত্রী: স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়নে দেশে গড় আয়ু বেড়েছে

'দারিদ্রের হার ৮০ ভাগ থেকে নেমে এখন হয়েছে মাত্র ১০ ভাগ'

আপডেট : ২৮ এপ্রিল ২০১৯, ০৪:১৪ পিএম

স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নে দেশে গড় আয়ু বেড়েছে বলে মন্তব্য করেছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। রবিবার দুপুরে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষ্যে মানিকগঞ্জ জেলা হাসপাতাল মিলনায়তনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, "কমিউনিটি ক্লিনিক সেবার কারণে গ্রামীণ স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন হয়েছে। দেশের স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নের কারণে শিশু মৃত্যুর হার কমেছে, প্রসূতি মৃত্যুর হার কমেছে। এতে দেশে মানুষের গড় আয়ু বেড়েছে"।

"প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বাস্থ্য,শিক্ষা, রাস্তাঘাট, গ্রামীন অবকাঠামোসহ সকল সেক্টরের উন্নয়ন করেছেন। স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি প্রতিটি বাড়িতে বাড়িতে এখন বিদ্যুৎ পৌছে গেছে। অতীতে মানুষের গড় আয়ু ছিল ৫০ বছরের নিচে। এখন গড় আয়ু বেড়ে হয়েছে ৭২ বছর। দারিদ্রের হার ৮০ ভাগ থেকে নেমে এখন হয়েছে মাত্র ১০ ভাগ। আগে গ্রামে গ্রামে বাড়িতে প্রসুতির ডেলিভারী হতো। এখন কমিউনিটি ক্লিনিকে হচ্ছে। এতে প্রসুতির মৃত্যুর হার কমেছে। নবজাতক মৃত্যুর হার কমেছে। অতীতে ১৫০ ( লাখে) ভাগ প্রসুতির মৃত্যু হতো। তা এখণ কমে হয়েছে ৪০ ভাগ।আর শিশু মৃত্যুর হার ৬০০ থেকে কমিয়ে এখন ১৭০ ভাগ হয়েছে। শুধুমাত্র ৭০ ভাগ নামিয়ে আনার প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে", যোগ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, "নতুন করে যেসব কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করা হচ্ছে সেগুলো আরও আধুনিকভাবে করা হচ্ছে। সেগুলোতে দুইটি রুমের স্থলে চারটি করে রুম করা হবে। কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে এখন ৩০ রকমের বিভিন্ন ঔষধ বিনামূল্যে দেওয়া হচ্ছে"।   

"সারাদেশের স্বাস্থ্যসেবার উন্নয়ন হয়েছে। জেলার হাসপাতালগুলোতে আধুনিকীকরণসহ উন্নত যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়েছে। জেলা ও উপজেলা হাসপাতালগুলোতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। জেলা ও উপজেলা হাসপাতালের পাশাপাশি মা ও শিশু কল্যাণ কেন্দ্রেরও উন্নয়ন করা হচ্ছে", যোগ করেন জাহিদ মালিক।

মানিকগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিস এবং স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কার্যালয়ের যৌথ আয়োজনে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে সিভিল সার্জন ডা. মো. আনোয়ারুল আমিন আখন্দের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে কর্ণেল মালেক মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. মো. আকতারুজ্জামান, জেলা প্রশাসক এস, এম ফেদৌস, পৌর মেয়র  গাজী কামরুল হুদা সেলিম, মানিকগঞ্জ জেলা ২৫০ শয্যা হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক ডা. মো. আবদুল আওয়াল, জেলা ডায়াবেটিস হাসপাতালের সাধার সম্পাদক আফম সুলতানুল আজম খান আপেল প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।    

About

Popular Links