Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

স্বামীর নির্যাতনে গর্ভপাত, ভাইকে ফোনে রেখে আবারো নির্যাতন!

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে ইভা স্বামীর নির্যাতনের বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন।

আপডেট : ০২ জুন ২০১৯, ০৮:২৯ পিএম

লালমনিরহাট শহরে যৌতুকের দাবিতে খুরশিদা আক্তার ইভা (২৩) নামের এক গৃহবধুর ওপর 'অমানবিক' নির্যাতন চালিয়েছেন তার স্বামী।  

গত শুক্রবার লালমনিরহাট সদর থানায় ওই নারীর স্বামী হাছান আল হাবিবসহ তিনজনকে আসামি করে মামলা একটি মামলা করা হয়েছে। 

আহত ইভা রংপুরের পীরগাছা উপজেলার গুয়াবাড়ী এলাকার ইউসুফ আলীর মেয়ে। লালমনিরহাট শহরের সাপটানা এলাকার আব্দুস ছাত্তারের ছেলে হাছান আল হাবিবের (২৮) সঙ্গে ২০১৪ সালের ১৯ ডিসেম্বরে তার বিয়ে হয়।    

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, গত ৩০ মে সকাল ১১টার দিকে হাছান আল হাবিব তার দুই বোনের পরামর্শে ২ লাখ টাকা যৌতুকের জন্য ইভাকে নির্যাতন করেন। শরীরের বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি এক পর্যায়ে ইভার স্পর্শকাতর স্থানগুলোতেও নির্যাতন করা হয়। এ সময় ইভার বড়ভাই হাবিবুর রহমানের মোবাইল ফোনে কল দিয়ে তার ছোট বোনের আর্তচিৎকার শোনান। ইভা গত ৩০ মে থেকে লালমনিরহাট সদর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে ইভা স্বামীর নির্যাতনের বর্ণনা দিতে গিয়ে কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনি বলেন, রংপুরের বেগম রোকেয়া কলেজ থেকে বাংলা বিষয়ে অনার্স ফাইনাল পরীক্ষা দিয়ে গত ২৭ মে বাবার বাড়ি থেকে স্বামীর বাড়িতে লালমনিরহাটে যান তিনি। ৩০ মে তার স্বামী দুই বোনের সঙ্গে পরামর্শ করে নির্যাতন শুরু করে। এক পর্যায়ে তিনি নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে শিশু সন্তান হাসিন আল জাবিরকে (১৪ মাস) কোলে নিয়ে বাড়ির বাইরে গেলে স্থানীয় লোকজন এগিয়ে আসে। এসময় তাদের গালি দিয়ে তাড়িয়ে দেওয়া হয়। পরে তাকে চুলের মুঠি ধরে বাড়ির ভেতরে নিয়ে মারধর করা হয়। ওই দিন বিকালে তার বড়ভাই ও লালমনিরহাট থানার পুলিশ তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করে।  

ইভা আরও বলেন, ‘২০১৬ সালের ২ ডিসেম্বর যৌতুকের টাকার জন্য আমাকে নির্যাতনের এক পর্যায়ে আমার কোমরে লাথি দেওয়া হয়। তখন আমি চার মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলাম। কোমরে লাথি মারার দুইদিন পর ৪ ডিসেম্বর আমার প্রথম সন্তানটি অ্যাবরশন (গর্ভপাত) হয়ে যায়। সে সময় লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে আমাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছিল। যদি কখনো ভালো হয়, এই ভেবে বিয়ের পর থেকে অনেক নির্যাতন সহ্য করে সংসার করে আসছি। কিন্তু সন্তানের মুখ দেখার পরও সে আমাকে নির্যাতন করেই চলেছে। এখন ভাবছি, তার সাথে সংসার আর করা যাবে কি না? কেননা, সে আমাকে মেরেও ফেলতে পারে!’      

হাছান আল হাবিব। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

নির্যাতনের একটি মোবাইল কলরেকর্ড সরবরাহ করে মামলার বাদী হাবিবুর রহমান বলেন, ‘হাছান আল হাবিবসহ তিনজনের নামে লালমনিরহাট সদর থানায় একটি মামলা করেছি। বোনের চিকিৎসা চলছে। আমরা আদালতের মাধ্যমে এই নির্যাতনের বিচার চাই।’

‘বিয়ের সময় বোনের সুখের জন্য ৩ লক্ষ টাকা যৌতুক দিয়েছি। আরও ২ লক্ষ যৌতুকের টাকার জন্য বিভিন্ন সময় আমার বোনকে নির্যাতন করে আসছিল। কিন্তু গত ৩০ মে ভয়াবহ নির্যাতন করা হয়। এ কারণে মামলা করেছি।’ 

লালমনিরহাট সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহফুজ আলম বলেন, ‘ইভা নামের ওই গৃহবধুকে অমানসিকভাবে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে। এই ঘটনায় মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। আসামিকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

লালমনিরহাট সদর ১০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার আমিনুর রহমান বলেন, ‘গুরুতর আহত খুরশিদা আক্তারের স্পেশাল চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাছাড়া মারপিটের কারণে শরীরে বিভিন্ন স্থানে রক্ত জমাট বাঁধার কারণে কালো দাগ পড়েছে। এসবের জন্য তার দীর্ঘ মেয়াদি চিকিৎসার প্রয়োজন রয়েছে।’

About

Popular Links