Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

সংসদে অর্থমন্ত্রীর কড়া সমালোচনায় মেনন

কেন্দ্রীয় বাংকের ভূমিকা নিয়ে সাবেক মন্ত্রী বলেন, ব্যাংকগুলোকে তদারকি করতে তারা ব্যর্থ হয়েছে

আপডেট : ১৯ জুন ২০১৯, ০৯:২১ পিএম

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতৃত্বধীন ১৪ দলের শরিক ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অগ্রগতিতে বেশ ভালো অর্জন করলেও অর্থনৈতিক খাতের সংকট আরও উন্নয়নের পথে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বুধবার জাতীয় সংসদে প্রস্তাবিত ২০১৯-২০ অর্থ বছরের বাজেট আলোচনায় অংশ নিয়ে তিনি বলেন, "দেশের ব্যাংকিং খাতের লুটপাট, নৈরাজ্য ও বিশৃঙ্খলা অবস্থা কারো অজানা নয়।"

মেনন বলেন, "ঋণ খেলাপির দায়ে তারল্য সংকটে ও মূলধন ঘাটতিতে ব্যাংকগুলো আজ ন্যুব্জ। এবারের বাজেটেও করের টাকা দিয়ে ব্যাংকের ঘাটতি মূলধন পূরণ করার জন্য বরাদ্দ রাখা হয়েছে।"

কেন্দ্রীয় বাংকের ভূমিকা নিয়ে সাবেক মন্ত্রী বলেন, ব্যাংকগুলোকে তদারকি করতে তারা ব্যর্থ হয়েছে। "তারা নিজেদের অর্থ ঠিকমতো রাখতে পারেনি…দেশের জনগণ এ ব্যাপারে তাদের কাছ থেকে কোনো জবাবদিহি পায়নি।"

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, রাজনৈতিক বিবেচনায় ব্যাংক প্রদান, ব্যাংকগুলোকে পারিবারিক মালিকানার হাতে তুলে দেয়া, একই ব্যক্তি একাধিক ব্যাংকের মালিক বনে যাওয়া, ব্যাংক খাতকে নিয়ন্ত্রণ করা, ব্যাংক মালিক অ্যাসোসিয়েশনের মাধ্যমে সিআরআর নির্ধারণ করা…এসবই ব্যাংক খাতের এই পরিস্থিতির জন্য দায়ী।

"তারা এমনকি প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশাবলীও- যেখানে বলা হয়েছে যে ব্যাংক সুদের হার একটি আদেশ দ্বারা সংশোধন করা যাবে না, মানেনি," যোগ করেন তিনি।

অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তব্য প্রসঙ্গ টেনে মেনন বলেন, অর্থমন্ত্রী ব্যাংক খাতে সংস্কারের জন্য কিছু কথা বলেছেন, তাও ভবিষ্যৎবাচক। ব্যাংক কমিশন গঠনের প্রস্তাবকেও তিনি আলোচনাসাপেক্ষ রেখে দিয়েছেন।

বাজেটে ইচ্ছাকৃতভাবে ঋণখেলাপিদের প্রসঙ্গে ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি বলেন, অর্থমন্ত্রীর পরামর্শ অনুযায়ী কয়েকদিন আগেও বাংলাদেশ ব্যাংক ঋণ খেলাপিদের পুরস্কৃত করেছে। ‘যদি হাইকোর্ট কোনো স্থগিতাদেশ না দিতো তাহলে মে থেকে কার্যকর হতো।’

তিনি আরও বলেন, বাজেটের ঘাটতি মোকাবিলায় সরকার ব্যাংক খাত থেকে ৪৭ হাজার ৩৬৪ কোটি টাকা নেবে। এতে ব্যাংকের তারল্যসংকট আরও বাড়বে। বেসরকারি বিনিয়োগ আরও কমে যাবে। কর্মসংস্থান হবে না। এসবই একই সূত্রে গাঁথা।

‘পুঁজিবাজারের ওপর কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই’ অর্থমন্ত্রীর এমন বক্তব্যেরও কঠোর সমালোচনা করেন মেনন।

তিনি বলেন, "পুঁজিবাজারের অপরাধীদের চিহ্নিত না করে পুঁজিবাজারের জন্য যে ব্যবস্থাদির কথা তিনি বলেছেন, তা কতটুকু কার্যকর হবে সেটা দেখার বিষয়।"


About

Popular Links