Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ভুলে ভরা ‘দেশসেরা প্রধান শিক্ষক’র সব পুরস্কার

কিশোরগঞ্জ এস ভি সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহনাজ কবীরকে ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৯’ উপলক্ষে ২০ জুন মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করে

আপডেট : ০২ জুলাই ২০১৯, ০২:০৫ পিএম

দেশসেরা প্রধান শিক্ষক হিসেবে শাহনাজ কবীরকে পুরস্কার হিসেবে যে সনদ, মেডেল ও ক্রেস্ট দেওয়া হয়েছে, সেগুলো সবই ভুলে ভরা।এতে চরমক্ষুব্ধ কিশোরগঞ্জ শহরের বাসিন্দা শাহনাজ কবীর ও তাঁর শুভাকাঙ্ক্ষীরা।

কিশোরগঞ্জ এস ভি সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শাহনাজ কবীরকে ‘জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ ২০১৯’ উপলক্ষে ২০ জুন মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর দেশের শ্রেষ্ঠ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে নির্বাচিত করে। গত বুধবার (২৬ জুন) রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে এক অনুষ্ঠানে তাঁর হাতে পুরস্কার তুলে দেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি।

শাহনাজ কবীর বলেন, প্রথমে ভুলের বিষয়টি তাঁর দৃষ্টিগোচর হয়নি। পরে বাসায় ফিরে দেখেন, তিনটি পুরস্কারেই অনেক ভুল রয়েছে। যেমন তিনি এস ভি সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক হলেও সনদপত্রে ‘এস ভি’ না লিখে লেখা হয়েছে ‘এম ভি’, আবার বিদ্যালয়টি কিশোরগঞ্জের হলেও সনদে লেখা হয়েছে ‘ময়মনসিংহ’। আবার তাঁর জন্য তৈরি একমাত্র মেডেলেও বিদ্যালয়ের নাম ‘এস ভি’ না লিখে ‘এম ভি’ লেখা হয়েছে। বালিকার জায়গায় ‘বালিক’ লেখা হয়েছে। আবার একই ধরনের ভুল ক্রেস্টেও রয়েছে।

শাহনাজ কবীর এসব ভুল সংশোধনের জন্য গত বৃহস্পতিবার দুপুরে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে যান। সেখানে গিয়ে বিষয়টি জানানোর পরিচালক, উপ-পরিচালকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাউকে পাননি। ফলে ভুলে ভরা পুরস্কার নিয়েই ওই দিন সন্ধ্যায় তিনি কিশোরগঞ্জের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেন।

শাহনাজ কবীর দুঃখ করে বলেন, জাতীয় পর্যায়ের পুরস্কারে এত ভুল মেনে নেওয়াটা কষ্টকর। অথচ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তিনি বিদ্যালয়ের নাম-ঠিকানাসহ সবকিছু আগেই সঠিকভাবে লিখে জানিয়েছিলেন। পুরস্কারের জন্য নির্বাচিত হওয়ার পর তাঁকে দেওয়া চিঠিতেও বিদ্যালয়ের নাম-ঠিকানা ঠিকঠাক ছিল।

About

Popular Links