Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

রেনুকে পিটিয়ে হত্যা, দায় স্বীকার হৃদয়সহ দুই আসামির

রেনুকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় করা মামলার প্রধান আসামি হৃদয়।

আপডেট : ২৬ জুলাই ২০১৯, ০৮:১১ পিএম

রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় সন্তানকে স্কুলে ভর্তির খোঁজ নিতে যাওয়া তাসলিমা বেগম রেণুকে ছেলেধরা সন্দেহে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় প্রধান আসামি ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় হোসেন মোল্লা ও রিয়া নামে এক নারী আদালত স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

২৬ জুলাই, শুক্রবার এ দুই আসামিকে আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পরিদর্শক আবদুর রাজ্জাক। উভয় আসামির স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ শেষে তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন ঢাকা মহানগর হাকিম মিল্লাত হোসেন। আদালতে সংশ্লিষ্ট থানার সাধারণ নিবন্ধন কর্মকর্তা লিয়াকত আলী। খবর বাংলা ট্রিবিউনের।

এরআগে, ২৫ জুলাই, বৃহস্পতিবার উত্তর পূর্ব বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকা থেকে রিয়া খাতুনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) নারায়ণগঞ্জের ভুলতা এলাকা থেকে হৃদয়কে গ্রেফতার করা হয়। এরপর হৃদয়ের পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এদিকে, বৃহস্পতিবার মুরাদ মিয়া, মো. সোহেল রানা, মো. বিল্লাল, মো. আসাদুল ইসলাম ও মো. রাজু নামের পাঁচজনের তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। গত ২২ জুলাই মো. শাহীন, মো. বাচ্চু মিয়া ও মো. বাপ্পি ৪ দিনের এবং গত ২৩ জুলাই মো. কামাল হোসেন ও আবুল কালাম আজাদের ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। ২২ জুলাই জাফর হোসেন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়ে কারাগারে রয়েছেন।

উল্লেখ্য, গত ২০ জুলাই, শনিবার সকালে রাজধানীর উত্তর বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে নিজের সন্তানের ভর্তির ব্যাপারে খোঁজ নিতে গিয়েছিলেন তাসলিমা বেগম রেণু। এ সময় ছেলেধরা সন্দেহে তাকে পিটিয়ে হত্যা করে বিক্ষুব্ধ জনতা। ওইদিন সকাল পৌনে ৯টার দিকে উত্তর বাড্ডা কাঁচাবাজারের সড়কে এই ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় ওই রাতেই বাড্ডা থানায় অজ্ঞাত ৪০০-৫০০ জনকে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেন নিহতের ভাগিনা সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটিু। হৃদয় এই মামলার প্রধান আসামি।

About

Popular Links