Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় আওয়ামী লীগ নেতাকে কোপালো ছাত্রলীগ কর্মী

‘তরি ছাত্রলীগ করলেও তার বড় ভাই তারাজুল ও চাচাতো ভাই গফুর ছাত্র শিবিরের রাজনীতি করে, এরআগে তারা একাধিকবার মেয়েদের উত্যক্তের ঘটনায় গণধোলায়ের শিকার হন’

আপডেট : ০৩ আগস্ট ২০১৯, ০৩:৪৬ পিএম

বগুড়ার গাবতলী উপজেলায় মেয়েকে উত্যক্তের প্রতিবাদ করায় বাবা আওয়ামী লীগ নেতা ফুল মিয়াকে (৫২) উপর্যুপরি কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছেন, স্থানীয় ছাত্রলীগ নেতা তরিকুল ইসলাম তরি ও তার সাঙ্গোপাঙ্গ শিবির ক্যাডাররা। 

শনিবার (৩ আগস্ট) দুপুরে ভুক্তভোগীর ছেলে আমির হোসেন গাবতলী থানায় একটি মামলা করেন।

এরআগে গত শুক্রবার (২ আগস্ট) সন্ধ্যায় উপজেলার জামিরবাড়িয়া হাটে এঘটনা ঘটে। রক্তাক্ত অবস্থায় তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। 

এপ্রসঙ্গে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাইমুর রাজ্জাক তিতাস জানান, “তরি এহামলায় জড়িত থাকলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।”

আহত ফুল মিয়ার ভাগ্নে আবু সাইদ ও অন্যরা জানান, গাবতলী উপজেলার বাসিন্দা ফুল মিয়া ইটভাটা ব্যবসায়ী ও সোনারায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক। তার মেয়েকে বেসরকারি পলিটেকনিক পিআইআইটির ডিপ্লোমা প্রকৌশলী ছাত্র ও সোনারায় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তরিকুল ইসলাম তরি প্রেমের প্রস্তাব দেন। প্রস্তাব নাকচ দেয়ার মেয়েটিকে উত্যক্ত করতো ছাত্রলীগের ওই নেতা। এঘটনা তার বাবাকে জানালে, ফুল মিয়া ওই ছাত্রলীগ নেতাকে এধরনের কাজ না করার জন্য বলেন।

এতে তরি ক্ষিপ্ত হয়ে ফুল মিয়াকে শায়েস্তা করার পরিকল্পনা করেন। শুক্রবার সন্ধ্যার দিকে ফুল মিয়া জামিরবাড়িয়া হাটের মাছপট্টিতে ছিলেন। এসময় তরির নেতৃত্বে  ৪-৫ জন দুর্বৃত্ত হাটে গিয়ে ধারালো অস্ত্র দিয়ে ফুল মিয়ার উপর অতর্কিত হামলা চালায়।  দা দিয়ে তার মাথা, হাত, পাসহ পুরো শরীরে উপর্যুপরি কুপিয়ে পালিয়ে যায়। রক্তাক্ত ফুল মিয়াকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। 

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য শাহানুর ইসলাম শাকিল ও সোনারায় ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জিল্লুর রহমান শাকিল জানান, “রবিউল ইসলাম রবি নামে একজন সোনারায় ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হলেও উপজেলা নেতৃবৃন্দ অজ্ঞাত কারণে তরিকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দিয়েছেন। তরি ছাত্রলীগ করলেও তার বড় ভাই তারাজুল ও চাচাতো ভাই গফুর ছাত্র শিবিরের রাজনীতি করে।” এরআগে তরি একাধিকবার সোনারায় উচ্চ বিদ্যালয় ও তাতুড়া গ্রামে মেয়েদের উত্যক্তের ঘটনায় গণধোলায়ের শিকার হয়েছেন বলেও জানান তারা। 

গাবতলী থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন) আবদুর গণি জানান, “আহত আওয়ামী লীগ নেতা ফুল মিয়ার ছেলে আমির হোসেন ছাত্রলীগ নেতা তরি ও অন্যদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এ ছাড়া হামলাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।”

About

Popular Links