Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

'ইলিশের বাড়ি' চাঁদপুরে জমছে বেচাকেনা, কমছে দাম

৪০০ থেকে ৬০০ গ্রামের মাছ বেশি রয়েছে। এগুলোর কেজি ৫০০ টাকা।

আপডেট : ২৪ আগস্ট ২০১৯, ০৪:৪৯ পিএম

ইলিশের বাড়ি খ্যাত চাঁদপুরে মাছটির আমদানি বেড়েছে। এতে বেড়েছে দেশের ইলিশের সবচেয়ে বড় বাজার চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছবাজারের শ্রমিক ও মৎস্য ব্যবসায়ীদের ব্যস্ততা। গত এক মাস আগের তুলনায় এখন আমদানি বাড়লেও তা ওঠানামা করছে। 

গত সপ্তাহে সাগর অঞ্চল থেকে চাঁদপুর মাছঘাটে প্রতিদিন প্রায় ২ হাজার মন ইলিশ আমদানি হলেও শুক্রবার (২৩ আগস্ট) তা কমে ৭০০ থেকে ৮০০ মণ আমদানি হয়েছে। এ কারণে ইলিশের দামও উঠা-নামা করছে। তবে গত ১৫ দিন আগের থেকে এখন ইলিশের দাম কিছুটা কম।

চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছ বাজারের আড়ৎদাররা জানান, প্রায় এক মাস আগে এখানে দেড় থেকে ২০০ মণ ইলিশের আমদানি হতো। তবে গত সপ্তাহে হাতিয়া, সন্দীপ, বরিশাল, ভোলাসহ সাগর অঞ্চল থেকে প্রতিদিন ২ হাজার থেকে আড়াই হাজার মন ইলিশ এখানে আমদানি হয়েছে। কিন্তু গত দুদিন ধরে তুলনামূলক কমে গেছে ইলিশের আমদানি। শনিবার এ বাজারে প্রায় ১ হাজার মন ইলিশ আমদানি হয়েছে। এতে করে চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছের বাজারে সকাল ৮টার পর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শ্রমিক, বিক্রেতা আর ক্রেতার ভিড় থাকে।

শনিবার চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছ বাজারে গিয়ে দেখা যায়, হাতিয়া, সন্দীপসহ সাগর অঞ্চল থেকে কয়েকটি ফিশিং বোট চাঁদপুর মাছঘাটে এসেছে। প্রতিটি বোটে রয়েছে ৫০ থেকে ১০০ মণ ইলিশ। সড়ক পথেও আসছে পিকআপ ও ট্রাকভর্তি ইলিশ। এসব ইলিশ আনলোড করে আড়তের সামনে স্তুপ করে ডাক তুলছেন ব্যবসায়ীরা।

আড়তাররা জানান, গত মাসের চেয়ে এখন ইলিশের দাম কম। যে ইলিশ প্রতি কেজি বিক্রি হতো ১ হাজার ৫০০ টাকায় তা এখন বিক্রি হচ্ছে ১ হাজার থেকে ১ হাজার ৩০০ টাকা পর্যন্ত।

চাঁদপুর মৎস্য বণিক সমবায় সমিতির সাবেক সভাপতি মিজানুর রহমান কালু ভূঁইয়া বলেন, ঘাটে যে মাছ আসছে, তার অধিকাংশই চাঁদপুরের বাইরের মাছ। চাঁদপুরের লোকাল মাছ নেই, দক্ষিণাঞ্চলের শশীগঞ্জ, পাথরঘাটা, মহিপুর, লেতরা ও হাতিয়ার গভীর সাগরের মাছ। আমদানিকৃত এসব ইলিশ এখানে থেকে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে যাচ্ছে। সাগর অঞ্চল থেকে চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছঘাটে আসা ইলিশ খালাস করা হচ্ছে। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন 

চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছঘাটের ব্যবসায়ী সাগর জানান, বর্তমানে চাঁদপুরের বাজারে ৪০০ থেকে ৫০০ গ্রামের ইলিশের মণ ২৩ থেকে ২৪ হাজার টাকা, ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ প্রতিমন ৪২ হাজার টাকা এবং প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৮০০ টাকা দরে, ১ কেজি ওজনের ইলিশ ৪৮ হাজার থেকে ৫০ হাজার টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। 

এক কেজি সাইজের ইলিশ এখানে দাম পড়ছে ১ হাজার ২০০ থেকে ১ হাজার ৩০০ টাকা পর্যন্ত। আর ১ লাখ টাকা দরে বিক্রি দুই কেজি ওজনের ইলিশের মণ। গত চার-পাঁচদিন আগে এ দরের চেয়ে ইলিশের দাম আরও কম ছিলো বলে জানান তিনি। 

চাঁদপুরে মাছ কিনতে ঢাকা, সিলেট, কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন জেলা থেকে আসছেন খুচরা ক্রেতারাও। তবে কম দামে তাজা ইলিশের খোজে আসা এসব ক্রেতারা মাছ কিনে নিয়ে যাচ্ছেন বাড়ি। কেউ খুশি আবার কেউ অসন্তুষ্ট। ছোট ইলিশের দাম এখন কিছুটা কম হলেও বড় ইলিশের দাম এখনো এ বাজারে ব্যবসায়ীরা হাকছেন দেড় থেকে ২ হাজার টাকা পর্যন্ত।

সিলেট থেকে মাছ কিনতে আসা আবু জাহেদ বলেন, "ভেবেছিলাম চাঁদপুরে কম দামে ইলিশ কিনতে পারবো। কিন্তু তা হলো না। আমি দুই কেজি ওজনের দুটি ইলিশ কিনেছি ৫ হাজার টাকা দিয়ে।" 

তবে এ মাছ বিক্রেতা হাসান বলেন, গত এক মাস আগে এই মাছের দাম ছিল ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা। 

ঢাকা থেকে আসা নাহিদ হাসান বলেন," আমি চাঁদপুরের এ বাজারে মাছ কিনতে এসেছি। পুরো বাজার ঘুরে মাছের দাম জানলাম। পরে ঢাকায় ফোন করে মাছের দাম জেনে দেখলাম- ঢাকার তুলনায় সব সাইজের মাছের দামই এখানে বেশি চাইছেন ব্যবসায়ীরা। তারপরও এক কেজি সাইজের ১০টি মাছ কিনেছি ১১ হাজার টাকা দিয়ে।" 

তিনি আরও বলেন, "এখানে খারাপ-ভালো ইলিশ মাছ আছে। যেটি ভালো মাছ সেগুলো দাম একটু বেশি।"

চাঁদপুর মৎস্য বণিক সমবায় সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. শবেবরাত সরকার বলেন, "চাঁদপুরের লোকাল নদীর মাছ নেই। তবে বরিশাল, নোয়াখালীর হাতিয়া, লক্ষ্মীপুরসহ দক্ষিণাঞ্চলের নদীগুলোতে মাছ ধরা পড়ছে। সেই মাছগুলো এখানে আমদানি হচ্ছে। আশা করছি, নদীগুলো সামনে ইলিশ ধরার ওপর নিষেধাজ্ঞা পর্যন্ত মাছে ভরপুর থাকবে।"  চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছ বাজারে আমদানি হওয়া ইলিশ। ছবি : ঢাকা ট্রিবিউন

তিনি আরও বলেন, "গত সপ্তাহে চাঁদপুর বড়স্টেশন মাছঘাটে ২ হাজার থেকে আড়াই হাজার মন ইলিশ আমদানি হয়েছে। তবে শুক্রবার মাছের আমদানি একটু কম হয়েছে। আশাকরি, দু-তিন দিন পর আবার মাছের আমদানি বাড়বে। তখন দামও আরও কমবে।" 

শবেবরাত সরকার দাবি করেন, বর্তমানে মাছের দাম হাতের নাগালে রয়েছে। সবাই এখন ইলিশ খাওয়ার মতো পরিবেশ আছে। বর্তমানে ৪০০ থেকে ৬০০ গ্রামের মাছ বেশি রয়েছে। এগুলোর কেজি ৫০০ টাকা আর এক কেজি সাইজের মাছ ১ হাজার থেকে ১ হাজার ১০০ টাকা। এর চেয়ে মাছের দাম আরও কমার সম্ভাবনা খুবই কম।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনিস্টিটিউটের চিফ সায়েন্টিফিক অফিসার (মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা) ড. আনিছুর রহমান বলেন, জাটকা ও মা ইলিশ নিধনের কারণে বাংলাদেশে ইলিশ একটা সময় কমে যাচ্ছিল। সরকার জাটকা ও মা ইলিশ রক্ষায় অভয়াশ্রম কর্মসূচী বাস্তবায়ন শুরু করে। প্রথম দিকে জেলেরা এ নিষেধাজ্ঞা মানছিল না। কিন্তু এখন তারা কিছুটা সচেতন হয়েছে। এসব যুগান্তকারী পদক্ষেপের কারণে আজকে ইলিশের আমদানি বেড়েছে।

এই কর্মকর্তা আরও বলেন, "এ জায়গায় খুশি হয়ে আমাদের বসে থাকলে চলবে না। গবেষণা চালিয়ে যেতে হবে। সেই সাথে মা ইলিশ রক্ষা, জাটকা রক্ষা কর্মসূচী বাস্তবায়ন এবং সরকারের আইন মেনে জেলেরা চললে প্রতি বছরই সহনশীল মাত্রায় ইলিশ আসবে।" 

About

Popular Links