Tuesday, May 21, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

ট্রাক ভর্তি টাকার টুকরা, দেখতে শত শত মানুষের ভিড়

মাসুদ নামের এক তরুণ জানান, মঙ্গলবার সকালে বাগবাড়ি সড়ক দিয়ে যাওয়ার পথে খাউড়ার বিলে টাকার টুকরা উড়তে দেখেন

আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০২:৩৬ পিএম

বগুড়ার শাহজাহানপুর উপজেলায় বাংলাদেশ ব্যাংক বগুড়া শাখার বাতিল করা ২৪০ বস্তা টুকরা টুকরা টাকা ফেলে দেওয়া  হয়েছে। 

মঙ্গলবার (২৪ সেপ্টেম্বর) বেলা ১১টার দিকে উপজেলার খাউড়ার সেতু সংলগ্ন বাগবাড়ি সড়কের পাশে বাতিল টাকাগুলো দেখা যায়।

শাজাহানপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ এর সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার দুপুরে সরেজমিন খাউড়ার বিলে গিয়ে দেখা যায়সেখানে শত শত মানুষের ভিড় করেছে। বগুড়া-বাগবাড়ি সড়কের পাশের বিলে যাওয়া কাঁচা সড়কে ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে ১০ টাকা থেকে ১ হাজার টাকার নোটের গোল ও বিভিন্নভাবে টুকরা করা অংশ। স্থানীয় জনগণের সহযোগিতায় পুলিশ বিল থেকে টাকার টুকরাগুলো বস্তায় তুলছিলেন। 

ধুনট উপজেলার বেড়েরবাড়ি গ্রামের মাসুদ নামের এক তরুণ জানানমঙ্গলবার সকালে বাগবাড়ি সড়ক দিয়ে যাওয়ার পথে খাউড়ার বিলে টাকার টুকরা উড়তে দেখেন। আশপাশের লোকজন টের পেয়ে টাকা দেখতে ছুটে আসেন। কৌতুহলী জনগণ ও বাচ্চারা বিলে নেমে টাকাগুলো দেখতে থাকে। 

তিনি আরও জানানমানুষ প্রথমে ভেবেছিলেন কোনো কালোবাজারি প্রশাসনের হাত থেকে বাঁচতে টাকাগুলো কেটে বিলে ফেলে গেছে। পরে পুলিশ কর্মকর্তারা বিলের পাড়ে যাওয়ার পর বাংলাদেশ ব্যাংকের সঙ্গে যোগাযোগ করে নিশ্চিত হয় সেগুলো বাংলাদেশ ব্যাংকের।

বাংলাদেশ ব্যাংকের ভারপ্রাপ্ত নির্বাহি পরিচালক জগন্নাথ চন্দ্র ঘোষ জানানবাতিল টাকাগুলো টুকরা করে ১ হাজার ৮০০ বস্তায় রাখা হয়েছে। এসব নষ্ট করতে তারা পৌরসভাকে চিঠি দিয়েছেন। পৌর কর্তৃপক্ষ ২৪০ বস্তা নিয়ে ডাম্পিং সেন্টারে না ফেলে বিলে ফেলেছে। 

বাংলাদেশ ব্যাংকে বাতিল টাকা পুড়িয়ে ফেলার ব্যবস্থা থাকার পরও ডাম্পিং করতে পৌরসভাকে দেওয়া হলো কেন-এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেনবাতিল টাকা পুড়িয়ে ফেলা ও ডাম্পিং দুটি করা যায়। তবে কতো টাকা বাতিল হয়েছে সে সম্পর্কে তিনি কিছু বলতে রাজি হননি।

এ প্রসঙ্গে বগুড়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী আবু হেনা মোস্তফা কামাল জানানবাংলাদেশ ব্যাংকের মহাপরিচালকের বগুড়ায় আসার কথা আছে। তাই ব্যাংকের বগুড়া শাখা কর্তৃপক্ষ বাতিল টাকা ডাম্পিং করতে তাদের চিঠি দিয়েছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে পৌরসভার কনভারজেন্সি শাখার লোকজন টাকাগুলো ব্যাংক থেকে নিয়ে ডাম্পিং করছে। বিলে ফেলে দেবার বিষয়টি তার জানা নেই। 

বগুড়া পৌরসভার ভারপ্রাপ্ত কনভারজেন্সি ইন্সপেক্টর মামুনুর রশিদ জানানবাতিল টুকরাগুলো বাঘোপাড়া ডাম্পিং সেন্টারে ফেলতে বলা হয়েছিল। কিন্তু ট্রাকচালক মাসুমের বাড়ি ওই এলাকায় (জালশুকা) হওয়ায় সে না বুঝেই বিলে ফেলেছে। ট্রাকচালক মাসুম এক ট্রাক ভর্তি ৩৫ বস্তা বিলে ফেলার কথা স্বীকার করেছেন।

শাজাহানপুর থানার পরিদর্শকর (তদন্ত) আবুল কালাম আজাদ জানানবাংলাদেশ ব্যাংকের বাতিল টাকা টুকরা ও গোল করে কাটার পর সেগুলো এই বিলে ফেলে গেছে। তিনি নমুনা হিসেবে আট বস্তা উদ্ধার করেছেন। এ ব্যাপারে শাজাহানপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি হয়েছে।


About

Popular Links