Monday, May 27, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

মানি লন্ডারিং: সেলিমের সঙ্গে ৮ আসামির ৩জন কোরীয় নাগরিক

সোমবার সেলিম প্রধান গ্রেফতার হওয়ার পর তাকে নিয়ে মঙ্গলবার দিন ও রাতে তার গুলশান ও বনানীর অফিস-বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মুদ্রা, মাদক ও নগদ অর্থ জব্দ করা হয়

আপডেট : ০২ অক্টোবর ২০১৯, ০৯:২৫ পিএম

অনলাইন ক্যাসিনোর মূলহোতা সেলিম প্রধানসহ আট আসামির বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মানি লন্ডারিং আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। এদেরমধ্যে তিনজন উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক। এছাড়া সেলিম প্রধানের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনেও মামলা হয়েছে।

বুধবার (২ অক্টোবর) সকালে র‌্যাব-১-এর এক কর্মকর্তা মামলা দুটি করেন। র‌্যাবের মিডিয়া উইংয়ের সহকারী পরিচালক মিজানুর রহমান এতথ্য নিশ্চিত করেছেন।


আরও পড়ুন: অনলাইন ক্যাসিনোর মূলহোতা সেলিমের বাসায় র‌্যাবের অভিযান


মানিলন্ডারিং আইনে দায়ের করা মামলার আসামি করা হয়েছে সেলিম প্রধানসহ আটজনকে। এরা হচ্ছে, সেলিম প্রধানের ব্যক্তিগত সহকারী রোমান, সীমান্ত রনি, শান্ত ও আক্তারুজ্জামান।

এছাড়াও এই মামলায় উত্তর ও দক্ষিণ কোরিয়ার তিন নাগরিককেও আসামি করা হয়। এদেরমধ্যে ইয়ংসিক লি উত্তর কোরীয় এবং ডো বং জো ও ডু-কোন দক্ষিণ কোরিয়ার নাগরিক বলে জানা গেছে।


আরও পড়ুন: সেলিম প্রধানের অফিস থেকে নগদ অর্থ, সার্ভার জব্দ


এছাড়া গুলশান থানায় হওয়া মাদক মামলায় সেলিম প্রধান ছাড়াও তার ব্যক্তিগত সহকারী রোমান ও আক্তারুজ্জামানকে আসামি করা হয়েছে।

সোমবার দুপুরে বিমানবন্দর থেকে সেলিম প্রধান গ্রেফতার হওয়ার পর তাকে নিয়ে মঙ্গলবার দিন ও রাতে তার গুলশান ও বনানীর অফিস-বাসায় অভিযান চালায় র‌্যাব। তার বাসা থেকে বিপুল পরিমাণ বিদেশি মুদ্রা, মাদক ও নগদ অর্থ জব্দ করা হয়। এছাড়া দুটি হরিণের চামড়াও জব্দ করা হয়েছে।

হরিণ হত্যার দায়ে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলমের ভ্রাম্যমাণ আদালত সেলিম প্রধানকে ছয়মাসের কারাদণ্ড দেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।


আরও পড়ুন: শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে 'ক্যাসিনো ব্যবসায়ী' সেলিম আটক



About

Popular Links