Tuesday, May 28, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

প্রেমিকার অভিনয় করে চোর ধরলেন নারী কনস্টেবল!

মোবাইল ফোনে পরিচয়ের পর, ট্রাক্টর চোরচক্রের সদস্য সাব্বির কনস্টেবল পারুলের সঙ্গে দেখা করতে সখীপুর আসেন। একপর্যায়ে পারুল জামার কলার টেনে ধরে অবস্থানরত পুলিশের কাছে তুলে দেন সাব্বিরকে

আপডেট : ০৪ অক্টোবর ২০১৯, ১০:৪২ এএম

প্রেমিকার অভিনয় করে সাব্বির আহমেদ বাবু (৩৫) নামের ট্রাক্টর চোরচক্রের এক সদস্যকে ধরেছেন টাঙ্গাইলের সখীপুর থানার নারী কনস্টেবল পারুল আক্তার। 

বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সখীপুর থানার এসআই ওবায়দুল্লাহ ঢাকা ট্রিবিউন’কে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পুলিশ জানায়, প্রথমে প্রেমের অভিনয় করে সাব্বির আহমেদ বাবুকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত সাব্বির ময়মনসিংহের গফরগাঁও উপজেলার পাগলা থানা এলাকার বাসিন্দা। তার কাছ থেকে তথ্য নিয়ে তানভীর আহমেদ (৩০) নামের আরেক ব্যক্তিকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পরে তার দেওয়া তথ্যর ভিত্তিতে ট্রাক্টরটি উদ্ধার করা হয়। বর্তমানে গ্রেফতারকৃতরা টাঙ্গাইল কারাগারে রয়েছেন।

পুলিশ আরও জানায়, গত ১১ সেপ্টেম্বর সাব্বির জমি চাষ করবেন বলে লাক মিয়া নামের এক ট্রাক্টর মালিককে উপজেলার কচুয়াবাজারে আসতে বলেন। লাক মিয়া ট্রাক্টর চালিয়ে কচুয়াবাজারে আসলে সংঘবদ্ধ চোরেরা তাকে জুসের সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ খাওয়ায়। এরপর চোরেরা ট্রাক্টর ও মোবাইল ফোন নিয়ে পালিয়ে যায়। লাক মিয়াকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয়রা তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। পরে সুস্থ হয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর লাক মিয়া বাদী হয়ে সখীপুর থানায় মামলা করেন।

সখীপুর থানার এসআই ওবায়দুল্লাহ বলেন, ট্রাক্টর নেওয়ার কয়েকদিন পর সাব্বির মোবাইল ফোনে লাক মিয়ার কাছে টাকা দাবি করেন। বিকাশের মাধ্যমে ২ লাখ টাকা দিলে ট্রাক্টর ফেরত দেওয়া হবে বলে জানান সাব্বির। লাক মিয়া বিষয়টি থানার পুলিশকে জানান। 

পরে তাকে ধরতে থানার নারী কনস্টেবল পারুল আক্তার ওই নম্বরে ফোন দিয়ে প্রেমের অভিনয় করেন। ২৭ সেপ্টেম্বর সকালে সাব্বির কনস্টেবল পারুলের সঙ্গে দেখা করতে সখীপুর আসেন। সখীপুর পিএম মডেল সরকারি স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠে পারুলের সঙ্গে সাব্বিরের দেখা হয়। সাদাপোশাকে পুলিশ ওই বিদ্যালয়ের আশপাশে অবস্থান নেয়। একপর্যায়ে নারী পুলিশ পারুল সাব্বিরের জামার কলার টেনে ধরে অন্য পুলিশ সদস্যদের কাছে তুলে দেন।

পারুল বলেন, সাব্বিরের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ লালমনিরহাট থেকে ২৯ সেপ্টেম্বর ট্রাক্টরটি উদ্ধার করে। পরে তাদেরকে আদালতে পাঠালে সাব্বির আহমেদ বাবু আদালতে দোষ শিকার স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

সখীপুর থানার ওসি আমির হোসেন বলেন, সাব্বির ট্রাক্টরটি বিক্রি করে দিয়েছিলো। পুলিশ ট্রাক্টর বিক্রির ৫০ হাজার টাকাও উদ্ধার করেছে। 

এর আগে, সখীপুর থানার এস আই ফয়সাল আহমেদ রিকশাওয়ালা সেজে হত্যামামলার এক আসামিকে ধরেন।

About

Popular Links