Thursday, May 30, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

এবার কুমিল্লায় সেতুর নিচে বস্তা বস্তা পচা পেঁয়াজ

সেতুর ওই প্রান্তটি ভাগাড় হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ব্যবসায়ীরাই সাধারণত সেখানে ময়লা ফেলেন

আপডেট : ১৮ নভেম্বর ২০১৯, ০৮:৫৮ পিএম

বেশি লাভের আশায় গুদামজাত করা বিপুল পরিমাণ পেঁয়াজ পচে যাওয়ার কারণে গত কয়েকদিন ধরে চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীতে ফেলে দিচ্ছিলেন খাতুনগঞ্জের আড়তদাররা। এবার কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার গৌরীপুর পূর্ব বাজারের সেতুর নিচে ময়লার ভাগাড়ে বস্তা বস্তা পচা পেঁয়াজ দেখা গেছে। 

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, রবিবার (১৭ নভেম্বর) রাতে বস্তাগুলো সেতুর নিচে ফেলে যাওয়া হয়। সোমবার সেতুর ওপর দিয়ে যাওয়ার সময় নিচে পেঁয়াজের বস্তা দেখে পথচারীদের মনে কৌতুহল হলে কেউ কেউ ছবি তুলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে পোস্ট করেন, শুরু হয় আলোচনা। সেখানে আনুমানিক ৫০ বস্তা পেঁয়াজ ছিল।

পচে যাওয়ার পর অসাধু ব্যবসায়ীরা গুদামজাত পেঁয়াজগুলো সেতুর নিচে ফেলে গেছে বলে মনে করেন গৌরীপুর বাজারের ব্যবসায়ী মো. জামাল হোসেন। তিনি বলেন, দাম বেড়ে যাওয়ায় এক শ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী পেঁয়াজ গুদামজাত করে পচিয়ে ফেলছে। এভাবে ফেলে দেওয়া মানে দেশের সম্পদের অপচয় এবং ভোক্তার অধিকার হরণ। এমন অসাধু ব্যবসায়ীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানান তিনি।


বস্তা বস্তা গুদামজাত করা পেঁয়াজ ফেলা হচ্ছে কর্ণফুলীতে!


এ বিষয়ে দাউদকান্দি উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা কামরুল ইসলাম খান বলেন, গৌরীপুর বাজারে সেতুর ওই প্রান্তটি ভাগাড় হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। ব্যবসায়ীরাই সাধারণত সেখানে ময়লা ফেলেন। 

তবে, “বস্তা বস্তা পচা পেঁয়াজের বিষয়টি আপনার কাছেই প্রথম শুনেছি”, মন্তব্য করে তিনি বলেন, “আমি খোঁজ নিচ্ছি। কোনো ব্যবসায়ী গুদামজাত করে পেঁয়াজ পচিয়ে ফেললে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

এ বিষয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর, কুমিল্লার সহকারী পরিচালক মো. আছাদুল ইসলাম বলেন, গুদামজাত করে পিয়াজ পচানোর অভিযোগ খতিয়ে দেখা হবে। প্রমাণিত হলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

About

Popular Links