Sunday, May 19, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

চাঁদাবাজ হাতি!

চেরাগপুরের বাসিন্দা আলতাফ হোসেন বলেন, হাতি দিয়ে দ্রুতগামী যানবাহনকে থামিয়ে তার সামনে হাতি দাঁড়ায়, টাকা না দেওয়া পর্যন্ত সেখান থেকে হাতি সরানো হয় না।

আপডেট : ১০ আগস্ট ২০১৮, ০১:২১ এএম

নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলার নওগাঁ-মহাদেবপুর সড়কসহ বিভিন্ন রাস্তায় চলছে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি। 

প্রায়ই এমন চাঁদাবাজির কারণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে পথচারি, ব্যবসায়ী ও স্থানীয় বাসিন্দারা। মহাদেবপুর উপজেলার নওগাঁ সড়কে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত প্রায় প্রতিদিন হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি করা হয়। 

মহাদেবপুরের খাজুর গ্রামের বাসিন্দা আব্দুর রাজ্জাক বলেন,  সকাল থেকেই সন্ধ্যা পর্যন্ত দুজন মিলে একটি বড় হাতি দিয়ে এই সড়কে চাঁদাবাজি করা হয়।  যানবাহন পথচারিদের থেকে নেয়া হয় চাঁদা। গাড়ি ও মানুষের ধরণ দেখে হাতির চাঁদার পরিমান বৃদ্ধি পায়। চাহিদামত টাকা না পেলে ছাড়া হয় না কাউকে। ছোট  যানবাহন ও পথচারিদের কাছ থেকে নেওয়া হয়  ১০ টাকা। আর বড় যানবাহন ভেদে ২০-১০০ টাকা পর্যন্ত আদায় করা হয়।

চেরাগপুরের বাসিন্দা আলতাফ হোসেন বলেন, হাতি দিয়ে দ্রুতগামী যানবাহনকে থামিয়ে তার সামনে হাতি দাঁড়ায়, টাকা না দেওয়া পর্যন্ত সেখান থেকে হাতি সরানো হয় না।

ট্রাক ড্রাইভার সুরুজ মিয়া বলেন, আজ আমি ৫০ টাকা দিয়ে হাতের হাত থেকে রক্ষা পেলাম। রাস্তায় এভাবে টাকা আদায়ের কারণে রাস্তায় জ্যাম তৈরী হয়। এমন কি হাতির ভয়ে দ্রুত থামতে গিয়ে দূর্ঘটনায় কবলে পড়তে হয়। 

মহাদেবপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান বলেন, বিষয়টি আমার আবগত আছে। তবে আমার এ বিষয়ে কিছু  করার নেই।


About

Popular Links