Wednesday, May 22, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

পাখি শুমারি: হাকালুকিতে ৫৩ প্রজাতির ৪০ হাজার পাখি

হাকালুকি হাওরের হাওড়খালে বিষটোপে মরা পাখি পাওয়া গেছে বলেও জানিয়েছে বার্ড ক্লাব


আপডেট : ৩০ জানুয়ারি ২০২০, ০৮:৩৩ পিএম

এশিয়ার বৃহত্তম মৌলভীবাজারের হাকালুকি হাওরের ৪০টি বিলে জলচর পাখি শুমারি সম্পন্ন হয়েছে। গত ২৮-২৯ জানুয়ারি বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব ও আই ইউ সি এন, বাংলাদেশ এই পাখি শুমারি সম্পন্ন করে। দুই দিনব্যাপী এ পাখি শুমারিতে তিন সদস্য বিশিষ্ট দুটি দল অংশ নেয়।  

বাংলাদেশ বার্ড ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা ও পাখি বিশেষজ্ঞ ইনাম আল হক বৃহস্পতিবার (৩০ জানুয়ারি) বিকেলে ঢাকা ট্রিবিউনকে জানিয়েছেন, এ বছর শুমারিতে হাওরে ৫৩ প্রজাতির ৪০ হাজার ১২৬টি জলচর পাখির উপস্থিতির প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তিনি বলেন, “এ বছর পাখির সংখ্যা ২০১৯ এর চেয়ে সামান্য বেশি। ২০১৯ সালে ৩৭ হাজার ৯৩১ প্রজাতির পাখি। ২০১৭ সালে ৫৮ হাজার ২৮১ প্রজাতির পাখি এবং ২০১৮ সালে ৪৫ হাজার ১০০ প্রজাতির পাখি।” 


আরও পড়ুন - শকুন সংরক্ষণে বাংলাদেশ, কী করছে সরকার?


তিনি আরও বলেন, “হুমকির মুখে আছে এমন ছয় প্রজাতির পাখিও দেখা গেছে। তার মধ্যে মহাবিপন্ন বেয়ারের ভুতিহাঁস। সংকটাপন্ন পাতি ভুতিহাঁস এবং প্রায় সংকটাপন্ন মরচেরঙ ভুতিহাঁস, ফুলুরি হাঁস ও কালামাথা কাস্তেচরা, উত্তুরে টিটি, উদয়ী গয়ার অন্যতম।”

হাকালুকি হাওড়ের পাখিসমৃদ্ধ বিলের মধ্যে চোকিয়া বিলে প্রথম দিনে ৫ হাজার ৪৩০টি প্রজাতির পাখি এবং চ্যাতলা বিলে দ্বিতীয় ৫ হাজার ১৪৭টি পাখি, ফুটবিল ৪ হাজার ৯৮৩ পাখি, বালিয়াজুরি ৩ হাজার ৩০৫ পাখির দেখা মিলেছে। 

এদিকে হাকালুকি হাওরের হাওরখালে বিষটোপে মরা পাখি পাওয়া গেছে বলে বার্ড ক্লাবের টিম জানিয়েছেন।

বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব ও আইইউসিএন, বাংলাদেশ এই পাখিশুমারির আয়োজন করেছিল। শুমারিতে অংশগ্রহণ করেন ড. পল থমসন, ইনাম আল হক, ওমর শাহাদাত, শাহেদ ফেরদৌস, শফিকুর রহমান ও তারেক অণু। 


আরও পড়ুন - খরগোশ শিকারিদের হাতে প্রাণ গেল মেছোবাঘের


হাওয়াবন্যা, কালাপানি, রঞ্চি, দুধাই, গড়কুড়ি, চোকিয়া, উজান-তরুল, ফুট, হিংগাউজুড়ি, নাগাঁও, লরিবাঈ, তল্লার বিল, কাংলি, কুড়ি, চেনাউড়া, পিংলা, পরোটি, আগদের বিল, চেতলা, নামা-তরুল, নাগাঁও-ধুলিয়া, মাইছলা-ডাক, চন্দর, মালাম, ফুয়ালা, পলোভাঙা, হাওড় খাল, কইর-কণা, মোয়াইজুড়ি, জল্লা, কুকুরডুবি, বালিজুড়ি, বালিকুড়ি, মাইছলা, গড়শিকোণা, চোলা, পদ্মা, কাটুয়া, তেকোণা, মেদা, বায়া, গজুয়া, হারামডিঙা, গোয়ালজুড়সহ হাকালুকি হাওরের মোট ৪০টি বিলে পাখি শুমারি অনুষ্ঠিত হয়।

অপরদিকে বাংলাদেশ বার্ড ক্লাব পাখি বিশেষজ্ঞ ইনাম আল হক জানান, ফেব্রুয়ারি মাসে শ্রীমঙ্গল উপজেলার বাইক্কাবিল ও হাইল হাওরে দুই দিনব্যাপী পাখি শুমারি অনুষ্ঠিত হবে।

About

Popular Links