Friday, May 24, 2024

সেকশন

English
Dhaka Tribune

গুলিতে আহত বাজ পাখিটির দায়িত্ব নিলো শিকারীর ছেলে

গুলির লাগার ১৮ ঘণ্টা পর আহত বাজটিকে উদ্ধার করে তার দায়িত্ব নেন ওই শিকারীর ছেলে 

আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ০৩:২৭ পিএম

শুক্রবার দুপুর গড়িয়ে চলেছে। স্কুল ছুটির দিন,  কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পদ্মা নদী তীরের মহেন্দ্রপুর পূর্বপাড়ার স্কুল পড়ুয়া শিশুরা বেড়িবাঁধের পাশে খেলায় মত্ত। ইতোমধ্যে তাদের নজর আটকায় বেড়িবাঁধের ঢালুতে গুলিবিদ্ধ আহত বিরল প্রজাতির বাজ পাখিটির দিকে। কেউ আহত পাখিটিকে নিয়ে খেলায় মত্ত হয়ে ওঠে। বাকিরা পাখিটিকে বাঁচাতে পথচারীদের কাছে সাহায্য চায়। একপর্যায়ে পথচারীদের সহায়তায় ১৮ ঘন্টা পর শিকারীর গুলিতে আহত বাজ পাখিটিকে উদ্ধার করা হয়।

ঘটনাস্থল থেকে স্থানীয় জগন্নাথপুর পুলিশ ক্যাম্পের কর্মকর্তাদের সাথে যোগাযোগ করা হয়। কিন্তু তদন্ত কেন্দ্রের এক কর্মকর্তা আহত পাখিটিকে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের ডেকে হস্তান্তরের পরামর্শ দেন। উদ্ধার করা আহত পাখিটির দায়িত্ব নেওয়া নিয়ে পথচারীরা বিপাকে পড়ে যান। অবশেষে ঘাতক শিকারীর ছেলে রানা অসুস্থ পাখিটিকে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করে তোলার প্রতিশ্রুতি দেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, গ্রামের স্কুলের পাশের একটি গাছে বিরল প্রজাতির এই বাজ পাখিটি বাসা বেঁধেছে। সেখানে নাকি বাচ্চাও তুলেছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজমিস্ত্রী শামসুল ওরফে শামসের বন্দুক দিয়ে গুলি চালালে পাখিটি আহত হয়। পরে ডান পাখায় গুলিবিদ্ধ পাখিটিকে পদ্মা নদীর কোল এলাকায় ফেলে দেয়।

পাখি শিকারীর ছেলে রানা জানায়, পাখিটি গ্রামের মধ্যে মৌমাছির চাকে হানা দেওয়ায় গ্রামবাসী হুমকির মুখে পড়ে যায়। একপর্যায়ে বাধ্য হয়ে তার বাবা পাখিটিকে মারার উদ্যোগ নেয়।

জগন্নাথপুর পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মকুল জানান, তিনি ও তার উর্ধ্বতন কর্মকর্তা উপজেলা সদরের রয়েছেন। উদ্ধার হওয়া আহত পাখিটি বন বিভাগের কর্মকর্তাদের ডেকে হস্তান্তর করার পরামর্শ দেন তিনি।

 কুমারখালী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম খানের সাথে কথা বলা হলে তিনি বলেন, আহত পাখিটি যাদের কাছে রয়েছে তারা যোগাযোগ করলে তিনি ব্যবস্থা নেবেন।   

About

Popular Links