• শুক্রবার, ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১১:০২ রাত

প্রেমে ব্যর্থ হয়ে প্রেমিকাকে হত্যা

  • প্রকাশিত ১১:১১ সকাল জুলাই ১৮, ২০১৮
murdered-bigstock-04-05-2017-1531890430327.jpg

প্রেমে ব্যর্থ হয়ে পরিকল্পিত ভাবে হত্যা করে লাশ গুম করার চেষ্টা করেছে।

হবিগঞ্জের মাধবপুরে নিখোঁজের ৫ দিন পর কলেজ ছাত্রী মনি সাওতাল (১৮) এর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। মনি সুরমা চা বাগানের মাহঝিল ডিভিশনের সুরেশ সাওতালের কন্যা এবং মাধবপুর কলেজের একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। 

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় উপজেলার সুরমা চা বাগান তেলানিয়া ছড়া থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।  

পুলিশ জানায়, মাধবপুর উপজেলার সুরমা চা বাগানের মাহঝিল ডিভিশনের বুদনা সাওতালের ছেলে অনিল সাওতাল (২৫) এর সাথে দীর্ঘদিন যাবত প্রেমের সম্পর্ক চলছিল মনি সাওতালের। 

সম্প্রতি তাদের মধ্যে প্রেমে বিচ্ছেদ ঘটে। এ নিয়ে প্রেমিক-প্রেমিকার মাঝে চরম হতাশ বিরাজ করে। 

গত ১৩ জুলাই মনি বাড়ি থেকে নিখোঁজ হয়। পরে তাকে অনেক খুজাখুজি করেও কোথাও সন্দান পাওয়া যায়নি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সুরমা চা বাগান তেলানিয়া ছড়ায় মনির লাশ দেখে স্থানীয় লোকজন দেখতে পায়। পরে বিষয়টি পুলিশকে অবগত করা হলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য হবিগঞ্জ সদর আধুনিক হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে স্থানীয় লোকজন প্রেমিক অনিল (২৫) কে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। 

নিহত মনি’র বাবা সুরেশ সাওতাল জানান, প্রেমে ব্যর্থ হয়ে অনিল সাওতাল তার কন্যাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে লাশ গুম করার চেষ্টা করেছে। 

চা বাগানের লস্করপুর ভ্যালির সভাপতি রবীন্দ্র গৌড় জানান, গত ১৩ই জুলাই থেকে মনি নিখোঁজ ছিল। মনির সঙ্গে একই গ্রামের আটক অনিল সাওতালের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। সম্প্রতি তাদের প্রেম বিচ্ছেদ হওয়ায় এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে আমরা ধারনা করছি।  

মাধবপুর থানার ওসি (তদন্ত) কামরুজ্জামান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অনিল সাওতাল মনির হত্যাকান্ডের ঘটনা স্বীকার করেছে। তাকে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে।