• সোমবার, এপ্রিল ০৬, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:০৮ দুপুর

নতুন বিমানবন্দর হচ্ছে নোয়াখালীতে

  • প্রকাশিত ১০:১২ সকাল জুলাই ২৩, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট ১০:২৫ সকাল জুলাই ২৩, ২০১৮
x640-1532319055851.jpg
রানওয়ে ফাইল ফটো। রয়টার্স

আগামী ৩ মাসের মধ্যে বিমান বন্দরের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন কাজ সম্পূর্ণ হবে- বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী

আগামী তিন মাসের মধ্যে সম্ভাব্যতা যাচাই কমিটির রিপোর্টের ভিত্তিতে নোয়াখালীর বিমানবন্দর ও অবকাঠামো নির্মাণের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হবে। নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়কে এ এলাকায় বিমান বন্দর স্থাপনের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের জন্য দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আগামী ৩ মাসের মধ্যে রির্পোট পাওয়া যাবে। এমন সব তথ্য জানিয়েছেন, বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী একেএম শাহজাহান কামাল।

বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষনা অনুযায়ী দেশের প্রতিটি জেলায় একটি করে বিমানবন্দর নির্মাণ করা হবে এবং সেই লক্ষ্যে সরকার কাজ করে যাচ্ছে। 

মন্ত্রী রোববার (২২ জুলাই) বিকেলে নোয়াখালীর সদর উপজেলার ধর্মপুর ইউনিয়নের চরশুল্লুকিয়া গ্রামের ১৬ একর ভূমির উপর ১৯৯৩ সালে নির্মিত নোয়াখালীর একমাত্র বিমানবন্দর এর রানওয়ে পরিদর্শন শেষে এক জনসভায় এসব কথা বলেন। 

নোয়াখালীর সদর উপজেলায় স্বাধীনতার পূর্বে ফসলি জমিতে কীটনাশক ছিটানোর জন্য একটি এয়ারস্ট্রিপ ছিল। স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে যা যথাযথ রক্ষণাব্ক্ষেণ ও পরিচর্যার অভাবে পরিত্যক্ত রয়েছে। সেই স্থানে একটি বিমানবন্দর স্থাপনের জন্য ২০১৭ সালে ১ আগস্ট সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের তৎকালীন বিমানমন্ত্রী রাশেদ খান মেননকে চিঠি লেখেন। ওই চিঠিতে বলা হয়, পরিত্যক্ত স্থানটিতে একটি রানওয়েসহ ছোট টার্মিনাল রয়েছে। জনস্বার্থ বিবেচনা করে নোয়াখালী সদর উপজেলায় অব্যবহৃত এয়ারস্ট্রিপে একটি নতুন বিমানবন্দর স্থাপনের জন্য ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয়।