• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

সিএনজি ডাকাতির সময় তরুণী যাত্রী অপহরণ

  • প্রকাশিত ০৪:৫৭ বিকেল আগস্ট ৩০, ২০১৮
সিএনজি ডাকাতির সময় তরুণী যাত্রী অপহরণ
তরুণীকে ১৬ ঘন্টায়ও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

সিএনজি চালকসহ দুই যাত্রীর মোবাইল ও টাকা পয়সা নিয়ে যায় ডাকাত। এক পর্যায়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গাড়ির যাত্রী তরুণীকে টেনে হেঁচড়ে নামিয়ে নিয়ে যায়। 

সিলেট-কোম্পানীগঞ্জ সড়কের তেলিখাল এলাকা থেকে বুধবার (২৯ আগস্ট) রাত ৯টায় তুলে নিয়ে যাওয়া তরুণীকে ১৬ ঘন্টায়ও উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

তরুণীকে উদ্ধারে পুলিশের একাধিক টিম কাজ করছে বলে জানিয়েছেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) দিলীপ কান্ত নাথ। 

সিএনজি অটোরিক্সা সিএনজির চালক লিটন আহমদ জানান, বুধবার রাত ৮টায় ৩ জন পুরুষ ও একজন নারী যাত্রী নিয়ে কোম্পানীগঞ্জের উদ্দেশ্যে সিলেট ছাড়েন তিনি। সড়কের বর্ণি গ্রাম পেরিয়ে কান্দিবাড়ি এলাকায় যাওয়ার পর রাত ৯টায় দুইজন পুরুষ যাত্রী নেমে যান। গাড়িটি তেলিখাল পেট্রোল পাম্পের কাছে আসামাত্র ১০/১২ জনের একদল মুখোশধারী ডাকাত তার গাড়িতে হানা দেয়। এ সময় তারা চালকসহ দুই যাত্রীর মোবাইল ও টাকা পয়সা নিয়ে যায়। এক পর্যায়ে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে গাড়ির যাত্রী তরুণীকে টেনে হেঁচড়ে নামিয়ে নিয়ে যায়।

লিটন আহমদ জানান, এ সময় আরো দুটি সিএনজি অটোরিক্সায় ডাকাতির ঘটনা ঘটে। লিটন আহমদ পরে কোম্পানীগঞ্জের ইসলামপুর পশ্চিম ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শাহ মোঃ জামাল উদ্দিনকে ঘটনাটি অবহিত করেন। চেয়ারম্যানের পরামর্শে পরে ওই চালক থানায় গিয়ে পুলিশকে ঘটনাটি জানায়। তরুণী স্থানীয় দয়ারবাজার যাবার উদ্দেশ্যে সিএনজিতে উঠে বলে জানায় চালক লিটন। 

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) দিলীপ কান্ত নাথ জানান, তরুণীকে উদ্ধারে বুধবার রাতে এবং বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টা পর্যন্ত তরুণীকে উদ্ধার করা যায়নি। অভিযান অব্যাহত আছে। তিনি জানান, ঘটনার রহস্য উদঘাটনে তারা চালক লিটনকেও নজরদারিতে রেখেছেন। 

স্থানীয় সূত্র জানায়, কোম্পানীগঞ্জের বর্ণি এলাকা ডাকাতদের আঁস্তানায় পরিণত হয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই এখানে ডাকাতির ঘটনা ঘটছে। ভাঙ্গাচোরা রাস্তার সুযোগ নিচ্ছে ডাকাত দল। এ ব্যাপারে আইন-শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর জোরালো পদক্ষেপ না থাকায় ডাকাতরা অপ্রতিরোধ্য হয়ে উঠছে বলে জানিয়েছে স্থানীয় ওই সূত্র। 

তবে, পুলিশের দাবি, ডাকাতি রোধে ওই এলাকায় সব সময় পুলিশ টহল দেয়।