• রবিবার, মে ১৯, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:১০ বিকেল

জর্ডান ফেরত লিলি ও তার সন্তানের দায়িত্ব নিলো পুলিশ সুপার

  • প্রকাশিত ০১:৩৪ দুপুর সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮
জর্ডান ফেরত লিলি ও তার সন্তানের দায়িত্ব নিলো পুলিশ সুপার
লিলি ও তার সন্তানের দায়িত্ব নিলো পুলিশ সুপার। মতিউর রহমান/ ঢাকা ট্রিবিউন

মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম লিলি ও তার পরিবারকে আগামীর নিরাপদ পথ চলা ও সার্বিক নিরাপত্তার আশ্বাস দেন।  

স্বপ্নের জর্ডান গিয়ে দুঃস্বপ্ন নিয়ে ফেরা লিলি (ছদ্মনাম) নামের নারীর শ্রমিক ও তার পরিচয়হীন কন্যা সন্তান এবং পরিবারের পাশে দাঁড়িয়েছেন মানিকগঞ্জের পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম। 

ঢাকা ট্রিবিউনসহ বিভিন্ন সংবাদপত্রে এনিয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে পুলিশ প্রশাসন ওই ভুক্তভোগী নারীর পাশে আইনী সহায়তার হাত সম্প্রসারিত করেন।

পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম রবিবার (০২ সেপ্টেম্বর) বিকালে জর্ডান ফেরত লিলি ও তার সন্তানকে দেখতে সিংগাইরে যান এসময় কিছু আর্থিক সহায়তাসহ শিশু বাচ্চার জন্য পোষাক পরিচ্ছদ ওই নারীর হাতে তুলে দেন। পুলিশ সুপার লিলি ও তার পরিবারকে আগামীর নিরাপদ পথ চলা ও সার্বিক নিরাপত্তার আশ্বাস দেন।  

মানিকগঞ্জ পুলিশ সুপার রিফাত রহমান শামীম জানান, মানবিক ঘটনা জানার পর তাৎক্ষনিক ভাবে সিংগাইর থানার ওসিকে বিষয়টি দেখার নির্দেশ দেওয়া হয়।

২৮ আগস্ট নির্যাতিত লিলি বাদি হয়ে মানব প্রচার, নারী ও শিশু নির্যাতন, জোড় করে দাসত্ব করানো, আটকে রেখে যৌন নির্যাতনে বাধ্য করা ও ধর্ষনের অভিযোগে থানায় মামলা করেন।

মামলা আসামী করা হয় সিংগাইর উপজেলার ধল্লা গ্রামের আয়শা আক্তার, জর্ডানে নারী ব্যবসায়ী সিংগাইর উপজেলার চর চান্দর গ্রামের সোনিয়া আক্তার, তার বাবা লিহাজ উদ্দিন বেপারী, মা জড়িনা বেগম ও  ভারতীয় নাগরিক গরজিদকে। 

অভিযুক্তকারীদের মধ্যে লিহাজ উদ্দিন বেপারী ও তার স্ত্রী জড়িনা বেগমকে ওই রাতেই গ্রেফতার করা হয়। 

পুলিশ সুপার আরো জানান, ‘লিলির কোন দোষ নেই। তিনি বিদেশে গিয়ে নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। নির্যাতিত লিলি ও তার সন্তান দায়িত্ব তিনি নিয়েছেন। এদের সকল ধরনের সহযোগিতা করা হবে। সেই সাথে তিনি প্রতিবেশীদের ভালো আচরণ করার পরামর্শ দেন’। 

এদিকে পুলিশ সুপারকে কাছে পেয়ে নির্যাতিত ওই নারী ও তার পরিবার আবেগপ্লাবিত হয়ে পড়েন। 

জর্ডান ফেরত লিলি জানান, ‘তিনি অত্যান্ত খুশি হয়েছেন তাকে ও তার সন্তানকে দেখতে পুলিশ সুপার এসেছেন। এখন মনে হয় তিনি আদালতে ন্যায় বিচার পাবেন’। 

প্রসঙ্গত, মানিকগঞ্জের সিংগাইরে দরিদ্র রিক্সা চালক বাবার সংসারের অভাব ঘুচাতে জর্ডানে পাড়ী জমিয়েছিলেন  লিলি (ছদ্মনাম)। কিন্তু প্রতারনার শিকার হয়ে মৌসুমী অন্তঃসত্বা আর শূণ্য হাতে দেশে ফিরেন। এদিকে গত ২৩ আগস্ট লিলি কন্যা সন্তানের মা হয়েছেন।