• বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ১২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৩৯ দুপুর

যুবলীগ নেতার অপরাধী ছেলেকে পুলিশের হাতে তুলে দিলেন মা

  • প্রকাশিত ০৩:০০ বিকেল সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮
বগুড়া সদর থানা
কলেজ ছাত্রীকে ছুরিকাঘাত করে আটক যুবলীগ নেতার ছেলে। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

সোমবার দুপুরে অভিকে আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছে পুলিশ।

বগুড়ায় কলেজ ছাত্রীকে তুলে নিয়ে ছুরিকাঘাত মামলার আসামী শহর যুবলীগ সভাপতির ছেলে কাওসার অভি (২২) এখন পুলিশ হেফাজতে। 

রোববার রাতে মা নাসরিন আলম তাকে সদর থানা পুলিশে সোপর্দ করেছেন। 

সোমবার দুপুরে অভিকে আদালতে হাজির করে ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেছে পুলিশ। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সদর পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর শেখ ফরিদ বলেন, তাদের ব্যাপক তৎপরতার মুখে অভিভাবকরা কাওসার অভিকে থানায় সোপর্দ করার সিদ্ধান্ত নেন।

বগুড়া শহর যুবলীগের সভাপতি মাহফুজুল আলম জয়ের স্ত্রী নাসরিন আলম রোববার রাতে সদর থানায় এসে তার ছেলে কাওসার অভিকে সোপর্দ করেন। 

উল্লেখ্য যে, বগুড়া সরকারি মুজিবুর রহমান মহিলা কলেজে উচ্চ মাধ্যমিক প্রথম বর্ষের এক ছাত্রী বাড়ি থেকে কলেজ ও পার্লারে যাতায়াতের পথে তাকে উত্ত্যক্ত করার পাশাপাশি প্রেমের প্রস্তাবও দিতো আসামী। 

প্রস্তাবে কোনো সাড়া না দেওয়ায় ওই ছাত্রীর ওপর ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৩০ আগস্ট বৃহস্পতিবার বিকালে অভি ও তার তিন সঙ্গি ছাত্রীকে তুলে একটি বাড়িতে আটক করে। 

সেখানে আবারও প্রেম প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করলে অভি ক্ষিপ্ত হয়ে ওই ছাত্রীকে মারধর করার পর উরু ও হাতে ছুরিকাঘাত করে। এরপর হুমকি দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়।

আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে নামাজগড় এলাকার ক্লিনিকে ভর্তি করেন। পরে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। 

অভির মা ও অন্যরা হাসপাতালে গিয়ে মীমাংসার প্রস্তাব দিলে ভয়ে অভিভাবকরা ৩১ আগস্ট ছাড়পত্র ছাড়াই মেয়েকে বাড়িতে নিয়ে আসেন। 

১ সেপ্টেম্বর বিকালে ছাত্রীর বাবা সদর থানায় অভি ও তার তিন সহযোগির বিরুদ্ধে মামলা করেন। পত্রিকায় লেখালেখি হলে পুলিশ মামলার আসামীকে গ্রেফতার তৎপর হয়।