• শুক্রবার, নভেম্বর ১৬, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৩২ বিকেল

চিত্রা নদীর নৌকা বাইচ এখন নড়াইলের সেরা উৎসব

  • প্রকাশিত ০৮:৫২ রাত সেপ্টেম্বর ৮, ২০১৮
নৌকা বাইচ
নড়াইলের চিত্রা নদীর নৌকা বাইচ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

চিত্রশিল্পী এস এম সুলতানের ৯৪ তম জন্মজয়ন্তী  উপলক্ষ্যে শনিবার (৮সেপ্টেম্বর) বিকেলে নড়াইলের চিত্রা নদীতে অনুষ্ঠিত হলো নারী ও পুরুষের ঐতিহ্যবাহী নৌকাবাইচ প্রতিযোগিতা।

মধ্যদুপুরে গুলি ছুড়ে আরম্ভ হলো নৌকা বাইচ। প্রথমে ৫টি টালাই নৌকা বাইচে অংশ নেয়। নৌকার ঠিক মাঝখানে একজন বাজনদার বৈঠার তালে তালে ঢং ঢং শব্দে পিতলের থালা বাজাচ্ছেন আর নৌকার একবারে গলুই এর সামে থেকে “চড়েন্দার” (নৌকার নিয়ন্ত্রক) লাঠি হাতে সামনের দিকে তালে তালে ঝুকছেন। নদীতে কেবলই পিতলের থালার ঢং ঢং আর পানিতে বৈঠা মারার শব্দ-মাঝে মাঝিদের চিৎকার। এই হলো বাংলাদেশের ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। 

নৌকা বাইচ উপলক্ষ্যে নদীর দুই পাড়ে বসেছে মেলা। সেখানে চরকী আর নাগোর দোলার পাশাপাশি নানা রকমের বাহারী খাবার আর পন্য নিয়ে দোকন বসে গেছে। 

এবারের নৌকাবাইচে নারী ও পুরুষ মিলে অংশ নিয়েছে ২১ টি নৌকা। প্রথমে অংশ নেয় নারী প্রতিযোগিরা। এখানে অংশ নেয় জলকুমারী,জলকবুতর,জলকন্যা,কপোত কপোতী আর কথাকলি নামের নৌকা। পরে বেলা সাড়ে ৩টার দিকে শুরু হয় পুরুষদের প্রতিযোগিতা। 

নড়াইল পুরাতন ফেরী ঘাট থেকে শুরু হয়ে জমিদার দের বাধা ঘাট হয়ে এস এম সুলতান বাড়ির পাশ দিয়ে ৫ কিঃ মিঃ দুরে মাছিমদিয়া এস এম সুলতান চিত্রা ব্রীজে গিয়ে শেষ হয়। 

পুরুষদের নৌকার মধ্যে টালাই আর কালাই মিলে ৩বার বাইচ অনুষ্ঠিত হয়। একেকটি টালাই এবং বড় কালাই নৌকায় দুপাশে ৬২ থেকে ৭০ জন মাঝিমাল্লা থাকে। 

বিগত প্রায় তিন দশক ধরে অনুষ্টিত চিত্রা নদীর নৌকা বাইচ এখন নড়াইলের সেরা উৎসবে পরিনত হয়েছে। বাইচ দেখতে নড়াইলের আশেপাশের যশোর, খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট থেকে এসছেন দর্শকেরা। নৌকাবাইচ দেখতে চিত্রা নদীর দুই পাড়ে, বাড়ির ছাদে, গাছের ডালে বসে যে যেভাবে পেরেছে সেভাবেই উপভোগ করেছে। 

এস এম সুলতান ফাউন্ডেশনের আয়োজনে চিত্রা নদীর শেখ রাসেল সেতুর নীচে নৌকাবাইচের উদ্বোধন করেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বিরেন শিকদার। 

শিল্পী সুলতান তার চিত্রকর্মে গ্রামীন জীবন, জনপদ ও সংস্কৃতিকে তুলির আঁচড়ে ফুটিয়ে তুলেছেন। প্রতিবছর তারই জন্মবার্ষিকীতে নৌকাবাইচ আয়োজনের মাধ্যমে শিল্পীর সেইস্বপ্ন বাস্তবায়নের প্রচেষ্টা সুলতান প্রেমী নড়াইলবাসীর।

শনিবার চিত্রা নদীতে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতার মধ্যদিয়ে ৪দিন ব্যাপী এ উৎসবের সমাপ্তি হল।