• শুক্রবার, অক্টোবর ১৮, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৩:৪৬ বিকেল

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার সুপারিশ

  • প্রকাশিত ০৮:৩৮ রাত সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার

সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায় এই সুপারিশ করা হয়।

সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩৫ বছর করার জন্য আবারও সুপারিশ করছে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটি। পাশাপাশি অবসরের বয়স বাড়ানোর সুপারিশও করা হয়েছে। এ বিষয়ে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়কে কার্যক্রম গ্রহণেরও সুপারিশ করেছে কমিটি। 

সংসদ সচিবালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তি’র বরাতে জানা গেছে, সোমবার (১০ সেপ্টেম্বর) জাতীয় সংসদ ভবনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভায় এই সুপারিশ করা হয়।

চলতি বছরের জুনে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ২৯তম সভায় সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ বছর করার সুপারিশ করা হয়। এর আগে কমিটির ২১তম সভায় সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়সসীমা ৩২ বছর করার সুপারিশ করা হয়েছিল।

বৈঠকের কার্যপত্র মারফত জানা গেছে, সোমবারের ওই বৈঠকে মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, এই সুপারিশ বাস্তবায়নে পরবর্তী কার্যক্রম গ্রহণের বিষয়টি সরকারি নীতি-নির্ধারণী সম্পর্কিত। এ বিষয়ে সরকারের নীতিগত সিদ্ধান্ত পাওয়া গেলে, পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

এদিকে সূত্র জানিয়েছে, সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়াতে সরকারের নীতিগত সিদ্ধান্ত না পাওয়ায়, এ বিষয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ নিতে পারছে না মন্ত্রণালয়। এই প্রেক্ষাপটে সংসদীয় কমিটি আবারও চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩০ থেকে বাড়িয়ে ৩৫ করার সুপারিশ করলো।

সংশ্লিষ্ট সূত্র আরও জানায়, সম্প্রতি জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সরকারি চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩২ বছর করার উদ্যোগ নেওয়া হয়। এ বিষয়ে সারসংক্ষেপও চূড়ান্ত করা হয়েছে। তবে এখনও এটি প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পায়নি। এটি প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলে চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য মন্ত্রিসভায় উপস্থাপন করা হবে।

সংসদ সচিবালয়ের ওই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, আজকের বৈঠকে ভূমি ব্যবস্থাপনা ও জমি ক্রয়-বিক্রয় সংক্রান্ত সরকারি নির্ধারিত ফি অনলাইনের মাধ্যমে জমা দেওয়া এবং জমি নিবন্ধনের ফি-সহ অন্যান্য বিষয় স্বচ্ছ করার জন্য আইন বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়।

বৈঠকে অংশ নেন কমিটির সভাপতি এইচ এন আশিকুর রহমানের সভাপতিত্বে সদস্য জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক, এ. বি. এম ফজলে করিম চৌধুরী, র. আ. ম. উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী, মো. আব্দুল্লাহ, মুস্তফা লুৎফুল্লাহ ও খোরশেদ আরা হক।