• বুধবার, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৮
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:২৩ রাত

রবিকে ৫০ কোটি টাকা জরিমানা করেছে বিটিআরসি

  • প্রকাশিত ১১:৩২ রাত সেপ্টেম্বর ১২, ২০১৮
রবি
রবিকে ৫০ কোটি টাকা জরিমানা করেছে বিটিআরসি। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসির কোনো কর্মকর্তা আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও মন্তব্য জানাতে রাজি হননি।

মোবাইল অপারেটর রবিকে ৫০ কোটি টাকা জরিমানা করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।মঙ্গলবার পাঠানো এক চিঠিতে আগামী ১০ কার্য দিবসের মধ্যে জরিমানার টাকা পরিশোধের জন্যে দেশের দ্বিতীয় শীর্ষ মোবাইল অপারেটরটিকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

নেটওয়ার্ক অপারেশনের লাইসেন্স না থাকা (অনুমোদনহীন)প্রতিষ্ঠান বাংলাফোনের কাছ থেকে সেবা নেওয়ায় এই পদক্ষেপ নিয়েছে বিটিআরসি। জরিমানার টাকা বেঁধে দেওয়া সময়ে পরিশোধ না করলে, আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তারা।

উল্লেখ্য, এর আগে চলতি বছরের জুলাইয়েও রবিকে একই অভিযোগে জরিমানা করে বিটিআরসি। সে সময় জরিমানা পরিশোধের জন্য অপারেটরটিকে চিঠিও দিয়েছিল কমিশন। কিন্তু সেই চিঠির পর অপারেটরটি কোনও যোগাযোগ করেনি বলে উল্লেখ করা হয়েছে বিটিআরসির সর্বশেষ চিঠিতে। আগের চিঠির কোনও উত্তর না দেওয়ায়, এবার কঠোর অবস্থানে নিয়েছে টেলিযোগাযোগ কমিশন।

তবে বিষয়টি নিয়ে বিটিআরসির কোনো কর্মকর্তা আনুষ্ঠানিকভাবে কোনও মন্তব্য জানাতে রাজি হননি। বিতর্কিত বাংলাফোনের কখনোই এনটিটিএন সেবা দেওয়ার লাইসেন্স ছিল না। তবে কিছু সময়ের জন্য বিটিআরসির কাছ থেকে ‘অনুমোদন’ নিয়ে এ সংক্রান্ত ব্যবসা করেছিল অপারেটরটি।

এর মধ্যে এই লাইসেন্সের জন্যে আবেদন করলেও, বাংলাফোনের সে আবেদন ২০১৪ সালে প্রত্যাখান করে সরকার। একই সঙ্গে তাদের নেওয়া পারমিটও আর বাড়ানো হয়নি। বিটিআরসি গণবিজ্ঞপ্তি জারি করে সংশ্লিষ্ট সকলকে বাংলাফোনের কাছ থেকে সেবা নিতে নিষেধ করেছে। এমনকি কোনো প্রতিষ্ঠান সেবা নিলে, তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছিল।

পরবর্তীতে বিটিআরসি এ বিষয়টি তদন্ত কমিটি গঠন করে এবং যাচাই-বাছাই করে দেখে অনুমোদনহীন বাংলাফোনের কাছে ঠিক কোন প্রতিষ্ঠানগুলো সেবা নিচ্ছে। সে তদন্তে রবি এবং টেলিটকের নাম উঠে এসেছিল। পরবর্তীতে টেলিটক তাদের কাছ থেকে সেবা নেওয়া বন্ধ করলেও রবি বাংলাফোনের সঙ্গে তাদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেনি।