• সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:২১ রাত

বাবা স্মার্ট ওয়াচ কেনার টাকা না দেয়ায় ছেলের আত্মহত্যা

  • প্রকাশিত ১২:২৭ রাত সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮
নিহত রাফিউর রহমান রাফি
নিহত রাফিউর রহমান রাফি। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

বুধবার রাত ১২টায় ঘরের সিলিং ফ্যানে ওড়না বেধে গলায় পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার সায়েন্সের এই শিক্ষার্থী।

নাটোর সদর উপজেলার দিঘাপতিয়া এলাকায় স্মার্ট ওয়াচের টাকা না পেয়ে এক মাদকাসক্ত যুবক আত্মহত্যা করেছে। 

বুধবার রাত ১২টায় ঘরের সিলিং ফ্যানে ওড়না বেধে গলায় পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার সায়েন্সের এই শিক্ষার্থী। 

নিহত রাফিউর রহমান রাফি (১৮) দিঘাপতিয়া বাজার এলাকার রজব আলীর ছেলে।

নিহতের পিতা, নাটোর ডাক বিভাগের প্রধান শাখার পোস্ট মাষ্টার রজব আলী জানান, এসএসসি পরীক্ষা পাস করার পর থেকে রাফি মাদকাসক্ত হয়ে পড়ে। এলাকার বখাটে ছেলেদের সাথে সে মেলামেশা করতে থাকে। 

রাফিকে ভালো করার জন্য তিনি যশোর পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগে ভর্তি করলেও এক সেমিস্টার পড়ার পর সে বাড়ি চলে আসে। এরপর থেকে সে আবারও এলাকার বখাটে ছেলেদের সাথে মিশতে থাকলে 

গত পরশু তাকে রাজশাহী পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগে ভর্তি করা হয়।

শনিবার সকালে রাজশাহীর একটি ছাত্রাবাসে তার চলে যাওয়ার কথা।

কিন্তু গত রাত বারোটার দিকে নিজ ঘরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে সে আত্মহত্যা করে।

নিহতের ছোট ভাই রাসেল জানান, গত তিনদিন আগে মামার মোটরসাইকেল চালাতে গিয়ে রাফি অ্যাক্সিডেন্ট করে। এরপর সে মামার মোটরসাইকেল না পেয়ে তা কিনে দিতে বাবাকে বলে।

এতে বাবা রজব আলী জানায়, কয়েকদিন আগে তাকে ল্যাপটপ কিনে দেয়া হয়েছে। আগামী মাসের বেতন পেলে তাকে মোটরসাইকেল কিনে দেয়া হবে বলেও ছেলেকে আশ্বস্ত করেন তিনি।

বুধবার বিকেলে বন্ধুদের কাছে টাকা ধার নিয়ে রাফি একটি স্মার্টওয়াচ কিনে। স্মার্টওয়াচের টাকা চাইলে রজব আলী দিতে চাননি। এ নিয়ে রাফি রাগারাগি করতে থাকে।

রাত্রি ১২ টার দিকে রজব আলীর সাথে একই রুমে শুয়ে থাকে রাফি। এক পর্যায়ে রজব আলী বাইরে গেলে ঘরে দরজায় সিটকি আটকে দেয় সে। এসময় ঘরের সিলিং ফ্যানের সাথে মায়ের ওড়না পেঁচিয়ে সে আত্মহত্যা করে।

রজব আলী বাইরে থেকে ফিরে এসে দরজা আটকানো দেখে ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে রাফির ঝুলন্ত মৃতদেহ দেখতে পান।

সদর থানার ওসি জালাল উদ্দিন বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, ঘটনাস্থলে তদন্তের জন্য পুলিশ পাঠানো হয়েছে।