• সোমবার, জানুয়ারি ১৮, ২০২১
  • সর্বশেষ আপডেট : ০১:০১ দুপুর

খাগড়াছড়িতে বাড়ছে ‘স্কুটি’ ব্যবহারকারী নারীর সংখ্যা

  • প্রকাশিত ১০:৫৩ সকাল সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১৮
স্কুটি বাইক
খাগড়াছড়িতে বাড়ছে স্কুটিবাইক ব্যবহারকারী নারীর সংখ্যা। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

গণপরিবহনের চেয়ে ঝামেলা কম, অর্থ ও সময় সাশ্রয়ের কারণে দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে ‘স্কুটি বাইক’। পেশাজীবী নারী ও শিক্ষার্থীদের কাছে বাহনটি এখন বিলাসীতার চেয়ে প্রয়োজনে পরিণত হয়েছে।

নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিকে উপেক্ষা করে মফস্বল শহর খাগড়াছড়িতে ‘স্কুটি বাইক’ ব্যবহার করছে নারীরা। আগে শুধুমাত্র চাকরিজীবী কয়েকজন নারী ‘স্কুটি বাইক’ ব্যবহার করলেও ইদানীং শিক্ষার্থীসহ অনেকে আগ্রহী হচ্ছে।  

গণপরিবহনের চেয়ে ঝামেলা কম, অর্থ ও সময় সাশ্রয়ের কারণে দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে ‘স্কুটি বাইক’। পেশাজীবী নারী ও শিক্ষার্থীদের কাছে বাহনটি এখন বিলাসীতার চেয়ে প্রয়োজনে পরিণত হয়েছে। 

তবে সামাজিক দৃষ্টিভঙ্গি ও দূর্গম এলাকায় যাতায়াতের ক্ষেত্রে কেউ কেউ হয়রানির শিকার হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। 

খাগড়াছড়ি জেলায় শতাধিক নারী স্কুটি বাইকার থাকার তথ্য রয়েছে মোটরসাইকেলের বিক্রয় কেন্দ্রগুলোতে ।        

ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

বেসরকারি কলেজ শিক্ষিকা কেমিয়া চাকমা বলেন, ‘স্কুটি বাইক’ ব্যবহার করে প্রতিদিন তিনি ৪০ কিলোমিটার দূরত্বে কলেজে যাতায়াত করেন। খাগড়াছড়ি-পানছড়ি আঞ্চলিক সড়কের ভাইবোন ছড়া স্টপেজ থেকে তার কলেজ ভেতরে হওয়ায় আগে প্রায় সময় গাড়ি পাওয়া যেত না। স্কুটি ব্যবহার করায় সময় মতো যাতায়াত করতে পারছেন। 

খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী শ্রাবন্তী ত্রিপুরা বলেন, টমটমের (অটোরিক্সা) জন্য অপেক্ষা করে অনেক সময় ক্লাসে দেরী হয়ে যেত। স্কুটি নিয়ে যাতায়াত করার পর থেকে সময় মতো ক্লাস ও অন্যান্য জায়গা স্বাচ্ছন্দ্যে যাতায়াত করা যাচ্ছে। 

ইসরাত আমিন নামে আরেক শিক্ষার্থী জানান, ‘গণপরিবহন এখনও মেয়েদের জন্য নিরাপদ বাহন হয়ে উঠেনি। খাগড়াছড়িতে টমটম বেড়ে যাওয়ার পর থেকে রিক্সা একদমই কমে গেছে। তাই কলেজে যাতায়াতে টমটমে অপরিচিত লোকজনের সাথে শেয়ার করে বসে যেতে হয়। যেটি খুব বিব্রতকর। বিষয়টি পরিবারকে বুঝিয়েও স্কুটি বাইক নিয়েছি’। 

ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

আনুচিং মারমা নামে এক নারী উদ্যোক্তা জানান, ‘খাগড়াছড়ি বাজারে আমার একটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। স্কুটি বাইক ব্যবহার করায় ঠিক সময়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে আসা যাওয়াসহ অন্যান্য কাজ অনেক সহজে করতে পারছি’।

নৃত্য শিল্পী রিয়া চাকমা জানান, ‘আমি সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডের সাথে জড়িত হওয়ায় বিভিন্ন জায়গা আসা যাওয়া করতে হয়। এক্ষেত্রে স্কুটি বাইকটি খুবই উপকারে আসে। কিন্তু অনেক সময় রাস্তা ঘাটে স্কুটি বাইক চালাতে গিয়ে নানা রকম নেতিবাচক মন্তব্যের সম্মুখীনও হতে হয়।’ 

খাগড়াছড়ির অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এমএম সালাহউদ্দিন বলেন, ‘নারীদের বাদ দিয়ে সামষ্টিক উন্নয়ন আশা করা যায় না। পাহাড়ে নারীরা রাস্তায় স্কুটি বাইক চালাচ্ছেন। এটি দেশের উন্নয়নের অগ্রগতির বার্তা। এখনও পর্যন্ত কোন নারী স্কুটি ব্যবহারকারী হয়রানি শিকার হয়েছেন বলে পুলিশের কাছে নেই। ইভটিজিং ও সামাজিক নেতিবাচক কর্মকাণ্ড রোধে কমিউনিটি পুলিশিং এবং সামাজিক সচেতনতার কার্যক্রম চলমান আছে।’

52
Facebook 50
blogger sharing button blogger
buffer sharing button buffer
diaspora sharing button diaspora
digg sharing button digg
douban sharing button douban
email sharing button email
evernote sharing button evernote
flipboard sharing button flipboard
pocket sharing button getpocket
github sharing button github
gmail sharing button gmail
googlebookmarks sharing button googlebookmarks
hackernews sharing button hackernews
instapaper sharing button instapaper
line sharing button line
linkedin sharing button linkedin
livejournal sharing button livejournal
mailru sharing button mailru
medium sharing button medium
meneame sharing button meneame
messenger sharing button messenger
odnoklassniki sharing button odnoklassniki
pinterest sharing button pinterest
print sharing button print
qzone sharing button qzone
reddit sharing button reddit
refind sharing button refind
renren sharing button renren
skype sharing button skype
snapchat sharing button snapchat
surfingbird sharing button surfingbird
telegram sharing button telegram
tumblr sharing button tumblr
twitter sharing button twitter
vk sharing button vk
wechat sharing button wechat
weibo sharing button weibo
whatsapp sharing button whatsapp
wordpress sharing button wordpress
xing sharing button xing
yahoomail sharing button yahoomail