• শনিবার, জানুয়ারী ১৮, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:২৭ সকাল

দুধের পাত্রে তাজা টেংরা মাছ পেল ভ্রাম্যমাণ আদালত

  • প্রকাশিত ০৩:৩৭ বিকেল অক্টোবর ৭, ২০১৮
টেংরা মাছ
দুধের পাত্রে মিলল টেংরা মাছ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

আটক মোতালেব হোসেন জানান, প্রতি মণ দুধে ৮ কেজি করে পানি মিশিয়ে তারা বাজারে বিক্রি করে থাকেন। নদী থেকে পানি মেশানোর সময় দুধের পাত্রে ১ টি টেংরা মাছ ঢুকে গিয়েছিল

সিরাগঞ্জের উল্লাপাড়ায় দুধে পানি মেশানোর দায়ে মোতালেব হোসেন নামের এক দুধ ব্যবসায়ীকে হাতেনাতে আটক করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাজেয়াপ্ত দুধ নদীতে ফেলার সময় একটি পাত্র থেকে ১ টি তাজা টেংরা মাছ উদ্ধার করা হয়।

শনিবার সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার লাহিড়ী মোহনপুর এলাকায় দহকুলা নদীর পাড়ে দুধে অবৈধভাবে পানি মেশানের সময় ভ্রাম্যমান আদালত এ অভিযান চালায়। এ সময় ভেজাল দুধের বেশ ক’টি পাত্র জব্দ করে স্থানীয়দের সামনে দুধ নদীতে ফেলে দেয়া হয়। 

এ অপকর্মের প্রেক্ষিতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুজ্জামান দুধ ব্যবসায়ী মোতালেবকে ৩ মাসের কারাদন্ড প্রদান করেছেন। 

উল্লাপাড়া উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক এস. এম. শহিদুল ইসলাম জানান, একটি সংঘবদ্ধ চক্র লাহিড়ী মোহনপুর বাজারে নিয়মিত ভেজাল দুধ উৎপাদন করে। দীর্ঘদিন ধরে দেশের বিভিন্ন এলাকায় এসব দুধ বিক্রি ও সরবরাহ করে আসছে বলে তাদের কাছে অভিযোগ রয়েছে। 

অভিযানের সময় নৌকায় রাখা ৮ টি বড় দুধের পাত্রে মোট ৩২০ কেজি ভেজাল দুধ জব্দ করা হয়। দুধে পানি মেশানোর সময় আটক মোতালেব হোসেন জানান, প্রতি মণ দুধে ৮ কেজি করে পানি মিশিয়ে তারা বাজারে বিক্রি করে থাকেন। নদী থেকে পানি মেশানোর সময় দুধের পাত্রে ১ টি টেংরা মাছ ঢুকে গিয়েছিল। 

ভ্রাম্যমান আদালতের ওই দলটির নেতৃত্বদানকারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আরিফুজ্জামান বলেন, “ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনার সময় যাদেরকেই হাতে নাতে ধরা হয়, মূলত তাদেরকেই শাস্তি প্রদান করা হয়। দুধ বিক্রেতারা ঠিক কাদের নিকট এসব দুধ বিক্রি করে আসছে, সে বিষয়টি পরবর্তীতে খতিয়ে দেখা হবে।”