• শনিবার, ডিসেম্বর ০৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৬:২৮ সন্ধ্যা

কাদের: পদ্মা সেতুতেও হামলার পরিকল্পনা ছিল

  • প্রকাশিত ০১:০৩ দুপুর অক্টোবর ১৪, ২০১৮
ওবায়দুল কাদের
সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন হলি আর্টিজান হামলার পর পদ্মা সেতু প্রকল্পেও হামলার ষড়যন্ত্র ছিল বলে জানিয়েছেন। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন।

“এই ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে কর্মরত বিদেশি প্রকৌশলী, পরামর্শকরা চলে যেতে চেয়েছিলেন"

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন হলি আর্টিজান হামলার পর পদ্মা সেতু প্রকল্পেও হামলার ষড়যন্ত্র ছিল বলে জানিয়েছেন। গত শনিবার বিকালে মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলায় পদ্মা সেতুর টোলপ্লাজার কাছে প্রধানমন্ত্রীর সুধী সমাবেশের মঞ্চ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, “হলি আর্টিজান হামলার পর পদ্মা সেতুতেও হামলার ষড়যন্ত্র ছিল। এ ক্ষেত্রে সেনাবাহিনীর উপস্থিতি কতটা কাজে লেগেছে বাস্তবে তা আমি হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছি। অস্বীকার করার কিছু নেই”। 

তইনি আরো বলেন, “এই ষড়যন্ত্রের কারণে পদ্মা সেতু নির্মাণে কর্মরত বিদেশি প্রকৌশলী, পরামর্শকরা চলে যেতে চেয়েছিলেন। এই রকম প্রতিকূল পরিবেশে সেনাবাহিনীর সদস্যরা তাদের কাজ চালিয়ে যাওয়ার সাহস যুগিয়েছেন। বাস্তবে এই সত্যতা অস্বীকার করার কিছু নেই। পদ্মা সেতু নির্মাণে পদ্মা পাড়ের মানুষের  অবদান অস্বীকার করার কোন কারণ নেই। শিবচর, জাজিরা, লৌহজং ও শ্রীনগর উপজেলার জনগণ, জনপ্রতিনিধি সীমাহীন কষ্ট স্বীকার করেছেন এজন্য”। 

এসময় তিনি পদ্মা সেতু নির্মাণে যে সফলতা, অবদান ও কৃতিত্ব তার সবকিছু বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বলে উল্লেখ করে বলেন, “দৃশ্যমান পদ্মা সেতু তার একক সাহসী নেতৃত্বের সোনালী ফসল”।

পদ্মা সেতুতে রেল সংযোগ প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী পদ্মাসেতুতে রেলসনযোগ জনদাবী ছিল উল্লেখ করে বলেন, “বহুল প্রতীক্ষিত সেই রেল সংযোগও রবিবার উদ্বোধন হবে। এটাও পদ্মা সেতুর জন্য একটি নতুন মাত্রা। অধীর আগ্রহে এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করছি”।

অত্যন্ত সংকটের সময় দায়িত্ব পেয়েছিলেন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “আমি নেত্রীর দেওয়া সেই দায়িত্ব অক্ষরে অক্ষরে পালন করার চেষ্টা করেছি। আমি একা নই, এখানে একটি দল কাজ করেছে। এখানে সচিব, পিডি, সেনাবাহিনীর মূল্যবান অবদান ছিল”। 

এসময় সেতুমন্ত্রীর সাথে আরও উপস্থিত ছিলেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক, স্থানীয় সংসদ সদস্য সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলি ও অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস, পদ্মা বহুমুখী সেতু প্রকল্পের পরিচালক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ এসময় উপস্থিত ছিলেন