• মঙ্গলবার, অক্টোবর ২২, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৮:২০ রাত

শেষ হলো অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’, নিহত দুই

  • প্রকাশিত ০৫:৩৯ সন্ধ্যা অক্টোবর ১৬, ২০১৮
অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’
সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলছেন সাংবাদিকদের ব্রিফ করছেন কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

সিটিটিসি ইউনিট সোমবার রাত থেকে সদর উপজেলার মাধবদীতে আরেকটি আস্তানা ঘেরাও করে রেখেছে

সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে নরসিংদীর শেখেরচরের ভগিরথপুর এলাকায় জঙ্গি আস্তানার অপারেশন ‘গর্ডিয়ান নট’। এ সময় পাঁচতলা ওই ভবন থেকে একজন পুরুষ ও একজন নারীর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। অপারেশন সমাপ্ত ঘোষণা করলেও বর্তমানে ওই এলাকা ঘিরে রেখেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। 

মঙ্গলবার (১৬ অক্টোবর) বিকাল পৌনে ৪টার দিকে সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিটের (সিটিটিসি) প্রধান মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, “ঘটনাস্থল থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতরা পুলিশের গুলিতে মারা গিয়েছে নাকি নিজেরা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে মারা গেছে তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি। নিহত দুই জনের মধ্যে একজন নারী ও একজন পুরুষ। আস্তানায় চারটি বিস্ফোরকের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়। এখনও পুরোপুরি তল্লাশি শেষ হয়নি।” 

তিনি আরও বলেন, “ঘটনাস্থলে যেসব আলামত পাওয়া গেছে, সে অনুযায়ী নিহত জঙ্গিদের ব্যাপারে অনুসন্ধান চালানো হবে; তাদের ডিএনও ও ফিঙ্গারপ্রিন্টও পরীক্ষা করা হবে না।” 

এর আগে সকালে ডিএমপির কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল (সিটিটিসি) ইউনিট এবং সোয়াট ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযান শুরু করে। এদিকে সিটিটিসি ইউনিট সোমবার রাত থেকে সদর উপজেলার মাধবদীতে আরেকটি আস্তানা ঘেরাও করে রেখেছে।

এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “নরসিংদীর আরেকটি আস্তানা মাধবদীর গাঙপাড় এলাকাতেও দিনের আলোতে অভিযান চালানো হবে। তাদেরকেও আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হবে। আত্মসমর্পণ না করলে পরবর্তীতে অ্যাকশনে যাবো আমরা।”

প্রসঙ্গত; সোমবার (১৫ অক্টোবর) ঢাকার কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটিটিসি) নব্য জেএমবির আস্তানা সন্দেহে নরসিংদীর মাধবদী ও শেখেরচরে দুটি বাড়ি ঘিরে রাখে। কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট ও পুলিশ সদর দফতর এই যৌথ অভিযান পরিচালনা করছে।

সিটিটিসির কর্মকর্তারা জানান, ‘আস্তানা দুটির মধ্যে একটি হলো মাধবদীর গাঙপাড় এলাকার সাত তলা একটি ভবন। ওই ভবনের সপ্তম তলায় অন্তত দুইজন পুরুষ ও একজন নারী রয়েছে বলে জানতে পেরেছেন কাউন্টার টেরোরেজিমের কর্মকর্তারা। অন্যটি হচ্ছে শেখেরচরের ভগিরথপুর এলাকার পাঁচতলা একটি ভবনে। ওই ভবনের পঞ্চম তলায় অন্তত দুইজন নারী রয়েছেন বলে ধারণা করছেন সিটিটিসি কর্মকর্তারা।

মঙ্গলবার সকাল ১০টা ১০ মিনিটে ঢাকা থেকে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম এলে এই অভিযান শুরু হয়। বাড়িটি থেকে বেলা সাড়ে ১১টা থেকে প্রায় ঘণ্টাখানেক দফায় দফায় গুলির শব্দ পাওয়া গেছে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে যখন আইজিপি জাবেদ পাটোয়ারী ঘটনাস্থলে যান, তখনও গুলির শব্দ শোনা যাচ্ছিল।

সকালে নরসিংদীতে পৌঁছে মনিরুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, “একাধিক জঙ্গি আছে সে বিষয়ে আমরা নিশ্চিত হয়েছি। তাদের কাছে কী ধরনের অস্ত্র বা বিস্ফোরক থাকতে পারে, সে বিষয়ে আমাদের একটি ধারণা আছে।”

উল্লেখ্য, মাধবদী পৌরসভার ছোট গদাইরচরের সাত তলা নিলুফা ভিলার মালিক হাজী মো. আফজাল হোসেন নামের এক ব্যক্তি। ওই ভবনের পঞ্চম তলার একটি ফ্ল্যাটে জঙ্গিরা অবস্থান করছে বলে পুলিশের ধারণা। ভবনটির প্রথম থেকে তৃতীয় তলা পর্যন্ত রয়েছে মিফতাহুল জান্নাহ মহিলা মাদ্রাসা। অন্যদিকে শেখেরচরের ভগীরথপুরের পাঁচ তলা বাড়িটির মালিক বিল্লাল হোসেন নামের এক কাপড় ব্যবসায়ী। ওই ভবনটির ছাদে পুলিশ সদস্যরা অবস্থান নেন।