• সোমবার, জানুয়ারী ২০, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ১২:৪৫ রাত

হত্যার দুদিন পর বাংলাদেশির লাশ ফেরত দিলো বিএসএফ

  • প্রকাশিত ০১:০৬ দুপুর অক্টোবর ২২, ২০১৮
বাংলাদেশ -ভারত  সীমান্ত
বাংলাদেশ -ভারত সীমান্ত। ফাইল ছবি

গত শনিবার ভোরে ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার কান্তিভিটা সীমান্তে বিএসএফ এর গুলিতে নিহত হন বাংলাদেশী যুবক গোলাম রাব্বানী

গত রবিবার (২১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় বিজিবি-বিএসএফ কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফের গুলিতে নিহত গোলাম রব্বানী (২৫) নামের বাংলাদেশি যুবকের লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ কর্তৃপক্ষ। সোমবার সকালে ৫০ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল তুহিন মোঃ মাসুদ এ খবর টেলিফোনে ঢাকা ট্রিবিউনের কাছে নিশ্চিত করেছেন।

পতাকা বৈঠকের শর্ত অনুযায়ী পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ বালিয়াডাঙ্গী থানার পুলিশের কাছে লাশ হস্তান্তর করে। তবে সকালে লাশ পাবার কথা থাকলেও বিভিন্ন প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে লাশ পেতে সন্ধ্যা হয়ে যায়। পরে রাত ৯ টার দিকে রব্বানীর লাশ তার স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করে বালিয়াডাঙ্গী থানার পুলিশ কর্তৃপক্ষ। বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা সাজেদুল ইসলাম এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। 

উল্লেখ্য, গত শনিবার ভোরে ঠাকুরগাঁও জেলার বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার কান্তিভিটা সীমান্তে বিএসএফ এর গুলিতে নিহত হন বাংলাদেশী যুবক গোলাম রাব্বানী। এই ঘটনার প্রেক্ষিতে শনিবার বেলা ১২-৩০ থেকে ১-১৫ পর্যন্ত বাংলাদেশের কান্তিভিটা ও ভারতের হাটখোলা বিওপির নো ম্যানস ল্যান্ডে ৫০ বিজিবির পক্ষে অধিনায়ক লে কর্নেল তুহিন মোঃ মাসুদ ও বিএসএফর পক্ষে  ১৭১ বিএসএফ কমান্ডেন্ট রাকেশ সিনহার নেতৃত্বে বিজিবি-বিএসএফ ব্যাটালিয়ন কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। 

বৈঠকে বিজিবির পক্ষ থেকে বিএসএফর নিরস্ত্র বাংলাদেশির উপর গুলি চালানের তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বলা হয়, "এটা কেবল আন্তর্জাতিক রীতির লঙ্ঘনই নয়, এটা বাংলাদেশ-ভারতের চমৎকার সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কে বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে।"

অন্যদিকে বিএসএফের পক্ষ থেকে গরু চোরাচালানকারী দলটি বিএসএফর উপর আক্রমণ করেছিল বলে অভিযোগ করা হয়। তবে, বাংলাদেশের পক্ষ থেকে এর প্রতিবাদ করে একটি নিরস্ত্র দল কখনও একটি সশস্ত্র বাহিনীকে আক্রমন করতে পারেনা বলে উল্লেখ করা হয়।

এরপর গত রবিবার কান্তিভিটা সীমান্তের ৩৮৬ এস-ফোর নং পিলার এর কাছে নো ম্যানস ল্যান্ডে বিজিবি-বিএসএফ কোম্পানি কমান্ডার পর্যায়ে পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে লাশ ফেরত দেওয়ার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা হয়। 

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাতে রব্বানীসহ ৭/৮জন গরু আনতে কান্তিভিটা সীমান্তের ৩৮৯/৫ নম্বর সীমানা পিলার সংলগ্ন এলাকা দিয়ে ভারতের অভ্যন্তরে প্রবেশ করে। সীমান্তের আনুমানিক ৫০০ গজ ওপারে ভারতের হাটখোলা ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা তাদের লক্ষ্য করে গুলি করলে রব্বানী নিহত হন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে। নিহত রব্বানী বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার হরিণমারী ক্যাম্পেরহাট গ্রামের পশিরুলের ছেলে।