• সোমবার, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০২০
  • সর্বশেষ আপডেট : ০৯:০৬ রাত

জনসাধারণের মুখে পোড়া মোবিল, পঁচা সবজি লেপ্টে ধর্মঘট পালন করছে পরিবহণ শ্রমিকরা

  • প্রকাশিত ০৪:০৩ বিকেল অক্টোবর ২৯, ২০১৮
পরিবহন ধর্মঘটে নাকাল চালক
পরিবহন ধর্মঘটকারীরা গাড়ি থামিয়ে চালকদের মুখে পোড়া মবিল ছুড়ে দেন। ছবি: মেহেদি হাসান/ ঢাকা ট্রিবিউন।

পরিবহন শ্রমিকরা গতকালের মত আজও শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে যানবাহন আটকে দেওয়ার ফলে চরম ভোগান্তিতে পরেছেন চালক এবং সাধারণ মানুষ

পরিবহন শ্রমিকদের চলমান ধর্মঘটের দ্বিতীয় দিনে জনসাধারণের ভোগান্তি চরমে উঠেছে। গত রবিবার থেকে ৮ দফা দাবি আদায়ের লক্ষ্যে পরিবহন শ্রমিকরা দুই দিনের এই ধর্মঘট পালন করছেন।

জানা যায়, পরিবহন শ্রমিকরা গতকালের মত আজও শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে যানবাহন আটকে দেওয়ার ফলে চরম ভোগান্তিতে পরেছেন চালক এবং সাধারণ মানুষ। সোমবার সকালে নগরীর যাত্রাবাড়ীতে সকাল ৮টা থেকে ৯টার মধ্যে ধর্মঘটকারীরা চলমান গাড়ি আটকে চালকদের দিকে পঁচা শাকসবজি ছুড়ে মেরেছেন বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন।

তবে, যাত্রাবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওয়াজেদ আলী এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, "আমরা সকাল থেকেই পুরো এলাকা পর্যবেক্ষণ করছি।কোথাও এমন কোন ঘটনা ঘটেনি। ভোরবেলা কিছু শ্রমিক যানবাহন আটকানোর চেষ্টা করলেও আমরা তাদের সরিয়ে দিয়েছি। কেউ এইরকম কোন অভিযোগও দায়ের করেনি।"

অন্যদিকে পোস্তগোলা ব্রীজের কাছে সকাল ১০টা থেকে ১১.৩০ এর মধ্যে পরিবহনশ্রমিকরা চলমান যানবাহনের চালকদের মুখে পোড়া মোবিল মেখে দিয়েছে বলে প্রত্যক্ষ করেছেন ঢাকা ট্রিবিউনের ফটোসাংবাদিক মেহেদি হাসান।

এ বিষয়ে শ্যামপুর থানার ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান বলেন, "পোস্তগোলা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের আওতাধীন নয়।" তবে ঐ এলাকায় টহল দেবার সময় এমন কোন ঘটনা ঘটতে দেখেননি বলেও জানান তিনি। একইসাথে পোস্তগোলা কেরানীগঞ্জ থানার আওতধীন বলেও উল্লেখ করেন শ্যামপুর থানার ইন্সপেক্টর মিজানুর রহমান। 

তবে, দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ কামাল হোসেন পোস্তগোলা শ্যামপুর থানার আওতাধীন বলে দাবী করেন।

উল্লেখ্য, গত রবিবারও ধর্মঘট চলাকালীন নগরীর যাত্রাবাড়ী, গুলিস্তান, গাবতলি এবং মহাখালী বাস টার্মিনাল এলাকায় গাড়ি থামিয়ে চালকদের মুখে পোড়া মোবিল মেখে দিয়েছিলো পরিবহন শ্রমিকরা।