• মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ১০, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৫৫ রাত

ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ শুরু, রাজশাহীমুখী বাস বন্ধের অভিযোগ

  • প্রকাশিত ০৫:৪৫ সন্ধ্যা নভেম্বর ৯, ২০১৮
ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ শুরু, রাজশাহীমুখী বাস বন্ধের অভিযোগ
ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ শুরু, রাজশাহীমুখী বাস বন্ধের অভিযোগ। ছবি: ঢাকা ট্রিবিউন

সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনসহ ৭ দফা দাবি আদায়ে নবগঠিত জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের চতুর্থ সমাবেশ এটি

শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের অনুপস্থিতিতেই রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদ্রাসা ময়দানে শুরু হয়েছে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ। সমাবেশে যাতে নেতা-কর্মীরা যোগ দিতে না পারেন, সেজন্য রাজশাহী অভিমুখে বাস চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষ থেকে।

শুক্রবার দুপুর ২টায় পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে সমাবেশ শুরু হয়। 

শারীরিক অসুস্থতার কারণে রাজশাহীর সমাবেশে যোগ দেননি ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। সমাবেশে সভাপতিত্ব করছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের রাজশাহী বিভাগীয় সমন্বয়ক বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু।

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র ও মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন নগরীর সাহেববাজারে নেতা-কর্মীদের নিয়ে অবস্থান করছেন। সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনসহ ৭ দফা দাবি আদায়ে নবগঠিত জোট জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের চতুর্থ সমাবেশ এটি।

সমাবেশে কৃষক শ্রমিক লীগের কাদের সিদ্দিকী বলেন, আমি বিএনপির সভায় আসেনি। ড. কামাল হোসেনের ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্বে এসেছি। তাই আমি যদি ক্ষমতায় আসি। তাহলে বঙ্গবন্ধু ও জিয়ার বিভেদ ঘুচাবো। আমি বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে রাজনীতিতে এসেছি। বাংলাদেশের রাজনীতি মানেই খালেদা জিয়া। তাই তাকে বন্ধ করে রাখা যাবে না। কর্নেল অলি বলেছেন, “নির্বাচনে যাবো সে সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবো এই সিদ্ধান্ত হয়েছে।”

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, “কেন বিভিন্ন জাতীয় নেতারা এক মঞ্চে হলো? তার কারণ এখন গণতন্ত্র নিখোঁজ। গণতন্ত্র ফেরাতে আমরা একসাথে হয়েছি।”

তিনি আরও বলেন, “প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদার অধীনে নির্বাচন, শেখ হাসিনাকে রেখে নির্বাচন, সেই নির্বাচনে আপনারা ভোট দিতে পারবেন? শেখ হাসিনার অধীনে নির্বাচনে গেলে শেখ হাসিনা আজীবন প্রধানমন্ত্রী আর খালেদা জিয়া আজীবন জেলখানায়। তারেক রহমান দেশে ফিরতে পারবেন না। তাকে কারাগারে রেখে আপনারা নির্বাচনে যাবেন? সাত দফা না মানলে আপনারা নির্বাচনে যাবেন “

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও ঐক্যফ্রন্টের রাজশাহী সমন্বয়ক মিজানুর রহমান মিনুর সভাপতিত্বে জনসভায় উপস্থিত আছেন, বিএনপি মহাসচিব জনসভার প্রধান আলোচক মীর্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকী ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।

দুপুরের পর থেকেই জনসভা স্থলে আসতে শুরু করেন নেতাকর্মীরা। খন্ড খন্ড মিছিল নিয়ে তার মাদ্রাসা ময়দানে যোগদান করেন। বাস না থাকায় আশেপাশের জেলা ও উপজেলা থেকে ছোট ছোট যানবাহন নিয়ে লোকজন আসে। রাজশাহী অভিমুখী নেতাকর্মীরা আসতে পদে পদে সমস্যায় পড়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন নেতাকর্মীরা।

এদিকে রাজশাহী মহানগর বিএনপির দপ্তর সম্পাদক নাজমুল ইসলাম ডিকেন জানান, ‘জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের এ মহাসমাবেশে যোগ দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্যা ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, খন্দকার মোশাররফ হোসেন, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. মঈন থান, নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না, জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব, কর্নেল অলি আহমদ, আন্দালিব রহমান পার্থ প্রমুখ।’

এ সময় তিনি অভিযোগ করেন, ‘সমাবেশ উপলক্ষে রাজশাহী অভিমুখে বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিকল্প ব্যবস্থায় নেতা-কর্মীরা সমাবেশে উপস্থিত হচ্ছেন।’