• রবিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৯
  • সর্বশেষ আপডেট : ১০:৪৮ রাত

ধর্ষণের অভিযোগে কারাগারে ঢাবি শিক্ষক

  • প্রকাশিত ১০:২০ রাত নভেম্বর ২২, ২০১৮
আদালত
প্রতীকী ছবি

গত বুধবার ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভাটারা থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগীর স্বামী

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের(আইবিএ) সহকারী অধ্যাপক খালেদ মাহমুদকে ধর্ষণের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত এই আদেশ দেন বলে বাংলা ট্রিবিউনের একটি খবরে বলা হয়েছে।

এর আগে বুধবার (২১ নভেম্বর) ঐ শিক্ষকের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভাটারা থানায় মামলা দায়ের করেন ভুক্তভোগীর স্বামী। এর প্রেক্ষিতে ওই দিন রাতে রাজধানীর বসুন্ধরা এলাকা থেকে খালেদ মাহমুদকে গ্রেফতার করে  ভাটারা থানার পুলিশ।

এরপর বৃহস্পতিবার তদন্তের জন্য আটক খালাএদ মাহমুদকে কারাগারে আটক রাখার জন্য ভাটারা থানার পরিদর্শক শিহাব উদ্দিন আদালতে আবেদন করেন। অন্যদিকে আসামীপক্ষের আইনজীবী শহিদুল ইসলাম অভিযুক্ত খালেদ মাহমুদের জামিনের জন্য আবেদন করেন। তবে, আদালত দুই পক্ষের শুনানি শেষে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন।

আসামীপক্ষের আইনজীবী শহীদুল ইসলামকে এ প্রসঙ্গে জিজ্ঞাসা করা হলে তিনি বলেন, “আসামি খালেদ মাহমুদ সম্পূর্ণ নির্দোষ। এ ধরনের কোনও ঘটনাই ঘটেনি। আসামি ভিকটিমকে চেনেন না। তিনি পরিস্থিতির শিকার। হয়রানি করার জন্য তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়েছে। তাছাড়া আসামি খালেদ মাহমুদ একজন সরকারি কর্মচারী। পরিবারের উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। জামিন দিলে তিনি পলাতক হবেন না বলেও শুনানিতে বলেছি”।